সম্পর্ক উন্নয়নে পাসপোর্ট থেকে ইসরাইল ভ্রমণের নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ

0
999
সম্পর্ক উন্নয়নে পাসপোর্ট থেকে ইসরাইল ভ্রমণের নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ

অভিশপ্ত ও দখলদার ইসরাইলের সাথে সম্পর্ক উন্নয়নে বাংলাদেশ তার পাসপোর্ট থেকে ইসরাইলে বাংলাদেশী পাসপোর্ট ব্যবহারের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেছে।

গত, ২২ মে, শনিবার বাংলাদেশী ত্বাগুত প্রশাসন ইসরাইলের ব্যাপারে পরিবর্তনকৃত বাংলাদেশের
নতুন পাসপোর্ট নীতিটি সংবাদমাধ্যমে উপস্থাপন করে। বাংলাদেশের ত্বাগুত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সাংবাদিকদের জানায়, আন্তর্জাতিক মানদন্ডের সাথে দেশের পাসপোর্টের মানের সামঞ্জস্য বজায় রাখতেই এ পরিবর্তন আনা হয়েছে। এর ফলে বাংলাদেশী পাসপোর্ট অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলে ব্যবহারে প্রশাসনিক আর কোন বাঁধা থাকলো না।

জানা যায়, বাংলাদেশের পাসপোর্টে এতদিন ধরে লেখা থাকতো ‘দিস পাসপোর্ট ইজ ভ্যালিড ফর অল কান্ট্রিজ অব দ্য ওয়ার্ল্ড এক্সসেপ্ট ইসরায়েল’। তবে নতুন ই-পাসপোর্টে পরিবর্তন করে লেখা হয়েছে ‘দিস পাসপোর্ট ইজ ভ্যালিড ফর অল কান্ট্রিজ অব দ্য ওয়ার্ল্ড’। সেখানে ‘এক্সসেপ্ট ইসরায়েল/ইসরাইল ব্যতীত’ লেখাটি বাদ দেওয়া হয়েছে। এর মানেঃ বাংলাদেশের পাসপোর্ট এখন ইসরায়েলসহ বিশ্বের সব দেশের ক্ষেত্রেই বৈধ।

সংবাদ বিশ্লেষকরা তাইওয়ানের সাথে বাংলাদেশ সম্পর্কের উদ্ধৃতি টেনে বলেন,”এর ফলে ইসরাইলের সাথে বাংলাদেশের বন্ধন সুদৃঢ় হবে।” উল্লেখ্য, বাংলাদেশ তাইওয়ানকে স্বীকৃতি দেয়না তবে বাংলাদেশী পাসপোর্ট থেকে তাইওয়ান ভ্রমণের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের পর থেকে দেশটির সাথে বাংলাদেশের সম্পর্কের উন্নতি হয়েছে। বাংলাদেশ ত্বাগুত সরকারের নীতিগত এ সিদ্ধান্তে সন্তোষ প্রকাশ করেছে অভিশপ্ত ইহুদিবাদি দেশটি।

গত ২৩ মে রবিবার, ইসরাইলি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় উপ-মহাপরিচালক গিলাড কোহেন তার টুইটে লিখে, “সুখবর! বাংলাদেশ ইসরায়েলের সঙ্গে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা উঠিয়ে নিয়েছে। এবার বাংলাদেশ ও ইসরায়েলেরে মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা করলে উভয় দেশের জনগণ লাভবান হবে।” অর্থাৎ বাংলাদেশ ইসরাঈলের সাথে ভ্রমণের বারাআত তুলে নিয়েছে বলে সে আনন্দিত। সেই সাথে সে ভবিষ্যতে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের দিকেও আহ্বান জানিয়েছে।

Screenshot-20210524-151847

উল্লেখ্য, ইসরাইলের সাথে বাংলাদেশের বৈরিতাপূর্ণ সম্পর্ক সত্বেও, এ বছরের শুরুতে আল জাজিরার অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে ইসরাইলের একটি কোম্পানি থেকে বাংলাদেশের প্যারামিলিটারি ইউনিট, র‍্যাপিড একশন ব্যাটালিয়নের (র‍্যাব) জন্য নজরদারি প্রযুক্তি কেনার তথ্যটি উঠে আসে। তখন এদেশের মুরতাদ সরকার জনগণকে শান্ত করতে আল-জাজিরান এই রিপোর্টের নিন্দা জানিয়েছিল।

র‍্যাব প্রশাসন কর্তৃক পালিত এমনই একটি দুর্ধর্ষ প্যারা-মিলিটারি ইউনিট যারা নাগরিকদের গুম, হত্যা, নির্যাতন ও বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের জন্য কুখ্যাত।

বাংলাদেশী পাসপোর্ট থেকে ইসরাইল ব্যতীত ব্যবহারের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের পর বর্তমানে পাকিস্তানই একমাত্র দেশ যাদের পাসপোর্টে ইসরাইলে ব্যবহারের নিষেধাজ্ঞা বহাল রয়েছে।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন