ফেসবুকে পেজ খুলে হিন্দুদের উত্তেজিত করতে উসকানিমূলক ভুয়া পোস্ট করত আশিষ

0
1076
ফেসবুকে পেজ খুলে হিন্দুদের উত্তেজিত করতে বানোয়াট ও উসকানিমূলক পোস্ট করত আশিষ

কুমিল্লায় মন্দিরে কথিত হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে পেজ খুলে বিভ্রান্তিকর ও উসকানিমূলক পোস্ট দিত আশিষ মল্লিক (৩০) নামে এক হিন্দু যুবক। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজধানীর বনানী এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে মিথ্যা অপপ্রচার ও উসকানিমূলক পোস্ট দেওয়া ফেসবুক পেজের অ্যাডমিন আশিষ মল্লিক।
কুমিল্লার ঘটনাকে কেন্দ্র করে কিছু ব্যক্তি বাংলাদেশে দাঙ্গা লাগাতে মিথ্যা ও উসকানিমূলক বক্তব্য পোস্ট করে আসছিল। তাদের সেই পোস্টের মাধ্যমে সমাজে বিশৃঙ্খলাসহ ও জনমনে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হচ্ছে। এছাড়াও একটি স্বার্থান্বেষী মহল সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিভিন্ন গুজব ও মিথ্যা তথ্য পরিবেশন করে সহিংসতার ইন্ধন দিয়ে আসছে।

আশিষ মল্লিক গত ১৬ অক্টোবর একটি ফেসবুক পেজ খোলে। সেই পেজ ও নিজের ব্যক্তিগত আইডি থেকে উসকানিমূলক বক্তব্য পোস্ট করে আসছিল। সে নিজেই সেই পেজের অ্যাডমিন এবং তার সমমনা আরও কয়েকজন ব্যক্তিকে অ্যাডমিন হিসেবে নিযুক্ত করে। খুব দ্রুত পেজটির সদস্য ও ফলোয়ার কয়েক হাজার ছাড়িয়ে যায়। সেই ফেসবুক পেজ থেকে কুমিল্লার ঘটনাকে কেন্দ্র করে মিথ্যা তথ্য প্রচার এবং উসকানিমূলক পোস্ট দেওয়া হচ্ছিল।

বাংলাদেশের মুসলিমদের উপর সহিংসতার বিস্তার ঘটাতে অপতৎপরতা চলছিল। ফেসবুক পেজটিতে পার্শ্ববর্তী দেশসমূহে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন নৃশংস ঘটনার ভিডিও আপলোড করে জনমনে ভয়-ভীতি তৈরিসহ উসকানি দেওয়া হচ্ছিল।

অভিযুক্ত আশিষ মল্লিক তার প্রতিটি পোস্টে বাংলাদেশকে একটি সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠা করার অপচেষ্টা করতো। তার ফেসবুক পেজ থেকে পার্বত্য জেলার একজন স্থানীয় সরকার প্রতিনিধিকে নিয়ে একটি মিথ্যা তথ্য দিয়ে পোস্ট করা হয়। সেখানে বলা হয়—সনাতন ধর্মাবলম্বী মানুষদের হুমকি দিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান। নোয়াখালীতে মারা যাওয়া এক ব্যক্তিকে পায়ের রগ কেটে পুকুর ফেলে দিয়েছেন বলে অপপ্রচার করা হয় সেই পেজে।

আশিষ মল্লিক মনে করতো, এ দেশে হিন্দুদের নিয়ে নেতিবাচক ও বিভ্রান্তিকর পোস্ট দিলে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্টের মাধ্যমে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা উত্তেজিত হবে। এটাই তার মোটিভ ছিল।

এর বিরুপ প্রভাবও পড়েছে ব্যাপক। ভারতের উগ্র হিন্দু সংগঠনগুলো এগুলোকে পুজি করে মুসলিমদের বাড়িঘরে, দোকানপাটে, মাদ্রাসা, মসজিদে হামলা চালিয়েছে। ত্রিপুরায় এখনো ঝরছে মুসলিমদের রক্ত। গুজব ছড়ানোর অভিযোগের বাংলাদেশ ইসকনের দুটি টুইটার একাউন্ট ও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল।

তথ্যসূত্র:
——
১। হিন্দুদের উত্তেজিত করতে উসকানি ছড়াতেন আশিষ
https://tinyurl.com/4std4yw7
https://tinyurl.com/89mdvwtx

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন