পূর্ব আফ্রিকার বাকি দেশগুলোতেও হামলা চালাবে আশ-শাবাব: মার্কিন জেনারেল

ত্বহা আলী আদনান

2
1111

পূর্ব আফ্রিকায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃক নিয়োজিত ক্রুসেডার ‘AFRICOM’ জোটের কমান্ডার জেনারেল স্টিফেন টাউনসেন্ড দাবি করেছে যে, আসন্ন দিনগুলোতে পূর্ব আফ্রিকার দেশ সোমালিয়া ছাড়াও অন্য দেশগুলোতেও উপস্থিতি ও হামলা বৃদ্ধি করবে আশ-শাবাব। এই ইউএস “আফ্রিকম” এর কমান্ডার সম্প্রতি ইথিওপিয়ায় আশ-শাবাব দ্বারা পরিচালিত বীরত্বপূর্ণ হামলার বিষয়ে বিবৃতিতে এসব মন্তব্য করে।

গত ২৮ শে জুলাই বৃহস্পতিবার ওয়াশিংটন ভিত্তিক ডিফেন্স রাইটার্স গ্রুপের সাথে এক বৈঠকে কমান্ডার টাউনসেন্ড বলেছে যে, আশ-শাবাব সম্প্রতি সোমালি-ইথিওপিয়া সীমান্ত লাইনের মতো পূর্ব আফ্রিকার অন্যান্য দেশগুলোতেও আক্রমণ চালিয়ে যাবে।

বিগত ১০ দিনে ইথিওপিয়া ও সোমালিয়ার কৃত্রিম সীমান্ত অঞ্চলে হামলা বাড়িয়েছে হারাকাতুশ শাবাব। এই দিনগুলোতে সীমান্ত অঞ্চলে ইথিওপিয়া-সমর্থিত ‘লিউ’ বাহিনীর একাধিক সদর দফতরকে লক্ষ্যবস্তু করে হামলা চালিয়েছে আশ-শাবাব। যাতে শত শত ইথিওপিয়ান সৈন্য নিহত এবং আহত হয়েছে, শাবাব যোদ্ধাদের হাতে বন্দীও হয়েছে বহু সংখ্যক সৈন্য। অভিযানগুলো শেষে আশ-শাবাব পেয়েছে বিস্তৃত অঞ্চলের নিয়ন্ত্রণ এবং অগণিত অস্ত্র শস্ত্র আর অত্যাধুনিক সব সাঁজোয়া যান।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উক্ত কমান্ডারের করা মূল্যায়ন অনুসারে, এই অভিযানের সময় প্রায় ৫০০ আশ-শাবাব যোদ্ধা ইথিওপিয়া সীমান্ত থেকে ১৫০ কিলোমিটার গভীরে বিস্তৃত অঞ্চলে অনুপ্রবেশ করেছে। AFRICOM কমান্ডার টাউনসেন্ড, যে আগস্ট মাসে তার পদ ছেড়ে দেবে বলে আশা করা হচ্ছে। সে উল্লেখ করেছে যে, আশ-শাবাব যোদ্ধারা আগামী মাসগুলোতে ইথিওপিয়া হামলার অনুরূপ অন্য দেশগুলোতেও হামলার উদ্যোগ নিতে পারে।

“আশ-শাবাব কর্তৃক ইথিওপিয়া আক্রমণ একটি কাকতালীয় ঘটনা ছিল না। আর আমি এটি বিশ্বাস করি না। কেননা আশ-শাবাবের আমির আহমেদ দিরিয়ে গত বছর পূর্ব আফ্রিকাতে দখলদার দেশ এবং পশ্চিমা শক্তির উপর আক্রমণ বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছিল। এরপর প্রায় এক বছর পেরিয়ে গেছে। এই সময়টাতে আশ-শাবাব মূলত নিজেরদেরকে ভবিষ্যত যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত করেছে। আর এই প্রেক্ষাপটে এখন পূর্ব আফ্রিকায় আশ-শাবাবের আক্রমণ বৃদ্ধি পাবে।”

এই ক্রুসেডার জোটের কমান্ডার জোর দিয়ে আরও বলে যে, “আশ-শাবাব এখন অনেক বড় হয়েছে, আরও সাহসী এবং শক্তিশালী হয়েছে।”
মার্কিন কর্মকর্তারা “ভবিষ্যদ্বাণী” করেছে যে, আশ-শাবাব আসন্ন সময়ের মধ্যে প্রতিবেশী দেশ ইথিওপিয়া, কেনিয়া, জিবুতি এবং সোমালিয়ায় হামলা আরও দ্বিগুণ করবে।

2 মন্তব্যসমূহ

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন