ফিলিস্তিনের জিহাদ || আপডেট – ১৩ এপ্রিল, ২০২৪

0
75

ইসরায়েল বলছে, দখলীকৃত ফিলিস্তিনে ইসরায়েলিদের উপর ইরান, ইরাক এবং ইয়েমেন থেকে ৩০০ ড্রোন এবং মিসাইল হামলা চালানো হয়েছে। তবে এসব হামলায় এখন পর্যন্ত তেমন কোনো ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।

ইরান বলেছে, তারা গত ১ এপ্রিল সিরিয়ায় ইরান দূতাবাসে ইসরায়েলি হামলার প্রতিশোধ হিসেবে এই হামলা চালিয়েছে। ইরান আরও জানিয়েছে, এই পর্যন্তই বিষয়টি সমাপ্ত বলে মনে করা যেতে পারে! কিন্তু ইরানের এই হামলার কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে অনেক। দখলদার ইসরায়েল ইরানের হামলা ৯৯%-ই প্রতিহত করতে সক্ষম হয়েছে বলে জানাচ্ছে জায়োনিস্ট বাহিনী।

যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, তারা ইসরায়েলকে সমর্থন করে যাবে তবে ইরানের বিরুদ্ধে যুদ্ধে তারা ইসরায়েলকে সাহায্য করবে না!

গাজায় ইসরায়েলের ৬টি বড় ধরনের হামলায় আরও অন্তত ১৯ জন ফিলিস্তিনি নিহত এবং ২ শতাধিক আহত হয়েছেন। পশ্চিম তীরেও বর্বর আগ্রাসন অব্যাহত রেখেছে জায়োনিস্ট বাহিনী অন্তত ১৯ জনকে সেখানে আহত করেছে দখলদার বাহিনী।

নাবলুসে একটি অ্যাম্বুলেন্সে হামলা চালিয়েছে জায়োনিস্ট বাহিনী।

গাজায় ইসরায়েলি হামলায় এখন পর্যন্ত নিহত হয়েছেন অন্তত ৩৩,৬৮৬ জন ফিলিস্তিনি। আহত হয়েছেন আরও অন্তত ৭৬,৩০৯ জন ফিলিস্তিনি।

খান ইউনিসের মা’আন এলাকায় একটি জায়োনিস্ট ড্রোনের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছেন আল-কুদুস ব্রিগেড।

তুলকারেমে জায়োনিস্ট বাহিনীর অবস্থানে মেশিনগান দিয়ে হামলা চালিয়েছেন আল-আকসা শহীদি ব্রিগেডের যোদ্ধারা।

কালকিলিয়াতে জায়োনিস্ট বাহিনীর একটি চেকপয়েন্টে মেশিনগান দিয়ে হামলা চালিয়েছেন আল-আকসা শহীদি ব্রিগেডের যোদ্ধারা।

আল-খলিল এলাকার খারসিনা দখলদার বসতিতে হামলা চালিয়েছেন আল-আসিফাহ বাহিনী।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন

পূর্ববর্তী নিবন্ধফটো রিপোর্ট || শিশুদের জন্য মুজাহিদদের ঈদ বোনাস ও উপহার
পরবর্তী নিবন্ধফটো রিপোর্ট || রিবাতের ভূমিতে আশ-শাবাব মুজাহিদিনের রামাদান