ইন্টারনেট বন্ধ তাই অনলাইন সেবা পেতে কাশ্মিরিদের ‘ইন্টারনেট এক্সপ্রেস’যাত্রা

0
312

বিশেষ মর্যাদা বাতিলের পর আন্দোলন ঠেকাতে জবরদখলকৃত কাশ্মিরে ইন্টারনেট বন্ধ করে রেখেছে ভারত সরকার। তাই বাধ্য হয়ে কাশ্মিরিরা সে সেবা পেতে এখন হাঁটছেন ভিন্ন পথে।

আঠারো বছর বয়সী আবরার আহমেদসহ হাজারো কাশ্মিরিকে প্রচণ্ড ঠাণ্ডা ও তুষারকে উপেক্ষা করে প্রতিদিন কয়েক ঘণ্টা ট্রেন ভ্রমণ করতে হচ্ছে।

দলবদ্ধভাবে তারা ট্রেনে ঠাসাঠাসি করে শ্রীনগরের প্রধান শহর বানিহালে চলে যান। সেখানে তারা ক্যাফেগুলোতে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট ব্যবহারের সুযোগ পান। এজন্য তাদেরকে ঘণ্টাপ্রতি দিতে হয় ৩০০ রুপি পর্যন্ত। আর এ ট্রেনকে তারা নাম দিয়েছেন ‘ইন্টারনেট এক্সপ্রেস’।

একটি ভিড়ে ঠাসা ক্যাফেতে অনলাইনে একটি চাকরির দরখাস্ত করার পর আবরার আহমেদ থমসন রয়টার্স ফাউন্ডেশনকে বলছিল, এ সুবিধা গ্রহণ ছাড়া আমার আর পথ ছিল না। ক্যাফেটিতে আবরারের মতো অনেকেই এসেছেন যা ১৬২ দিন ধরে ইন্টারনেট বন্ধের শিকার।

আবরার বলছিল, ‘আমার রাজমিস্ত্রি বাবা গত বছর সড়ক দুর্ঘটনায় পা হারানোর পর থেকে আমি ও আমার ছোট তিন ভাইবোনকে দেখাশোনার মতো কেউ নেই।’

কাশ্মিরে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ গত ৫ আগস্ট থেকে ব্রডব্যান্ড ও মোবাইল ডাটা সেবা বন্ধ করে রেখেছে। মুসলিম অধ্যুষিত এ অঞ্চলটির বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে একে দু’ভাগে বিভক্ত করেছে মোদি সরকার। আর এর প্রতিবাদে তীব্র জনঅসন্তুষ নিয়ন্ত্রণের অংশ হিসেবে সব ধরনের অনলাইন সেবা বন্ধ করে দেয়া হয়।

জাতিসঙ্ঘ ২০১৬ সালে ইন্টারনেটকে মানুষের অধিকার হিসেবে ঘোষণা করেছে। তবে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ বলছে, কাশ্মিরে বিক্ষোভ দমনের জন্যই যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। এ অঞ্চলটিতে ১৯৮৯ সালের পর শসস্ত্র বিপ্লবে ৬০ হাজারের বেশি মানুষ নিহত হয়েছে।

ইন্টারনেট বন্ধের কারণে ইন্টারনেটের উপর সরাসরি নির্ভরশীল খাতগুলো বিশেষ করে ই-কমার্স ও তথ্যপ্রযুক্তি খাত মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ কারণে আগস্ট থেকে কাশ্মিরে আড়াই বিলিয়ন ডলারের বেশি ক্ষতি হয়েছে বলে অঞ্চলটির প্রধান ব্যবসায়ী সংগঠন থেকে জানানো হয়েছে।

কাশ্মির চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির ভাইস প্রেসিডেন্ট মজিদ মির বলছিলেন, বর্তমান সময়ে বিশ্বে ইন্টারনেট ছাড়া ব্যবসা-বাণিজ্য অকল্পনীয়। ইন্টারনেটের কারণে কাজ হারিয়েছেন পাঁচ লাখের মতো মানুষ। অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে অর্থনীতির।’

সূত্র: সাউথ এশিয়ান মনিটর

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন