শাবাবের নিয়ন্ত্রণে সোমালি জেলা শহর ও ৪ সেনা ঘাঁটি

0
391

সোমালিয়ার একটি উপকূলীয় শহরে স্পেশাল ফোর্সের ৪টি সামরিক ঘাঁটিতে একযোগে আক্রমণ চালিয়েছেন হারাকাতুশ শাবাব মুজাহিদিন। এতে সোমালি সেনাবাহিনীর শত শত সৈন্য হতাহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

সূত্রমতে, হারাকাতুশ শাবাব যোদ্ধারা গত ৮ জুন শনিবার ভোর সাড়ে ৪টায়, মধ্য সোমালিয়ার জালাজদুদ রাজ্যের উপকূলীয় জেলা শহর আইলধিরে ব্যাপক আকারে একটি অতর্কিত আক্রমণ চালিয়েছেন।

শাহাদাহ এজেন্সির তথ্যমতে, শাবাব যোদ্ধারা আইলধীরের অভিযানটি শহরের ঐ ৪টি সামরিক ঘাঁটি লক্ষ্য করে একযোগে শুরু করেছিলেন। ঘাঁটিগুলোর ৩টির অবস্থান ছিলো শহরের কেন্দ্রস্থলে, চতুর্থটি ছিলো শহরের উপকণ্ঠে। ঘাঁটিগুলোর ২টির দায়িত্বে ছিলো মিশরীয় বাহিনীর প্রশিক্ষিত সৈন্যরা, ১টির দায়িত্বে ছিলো তুরস্কের প্রশিক্ষিত সৈন্যরা, অন্যটির দায়িত্বে ছিলো সরকারি মিলিশিয়ারা। আর শাবাবের আক্রমণের সময় ঘাঁটিগুলোতে ৪টি ব্যাটালিয়নের মোট ১,২০০ সৈন্য অবস্থান করছিল।

আশ-শাবাব মুজাহিদিন সেদিন ভোরে কয়েকটি অক্ষ থেকে ঘাঁটিগুলোতে আক্রমণটি শুরু করেন, যা কয়েক ঘন্টা স্থায়ী হয়েছিল। একপর্যায়ে মোগাদিশু সরকারি বাহিনী পিছু হটতে বাধ্য হয়, তখন প্রতিরোধ যোদ্ধারা আইলধীর শহরস্থ ঐ ৪টি ঘাঁটির উপর এবং সেই সাথে পুরো শহরের উপর তাদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হন।

স্থানীয় সূত্রমতে, আইল ধীর শহরে এদিন হারাকাতুশ শাবাব যোদ্ধাদের তীব্র আক্রমণে প্রায় ৭০০ সেনা সদস্য হতাহত হয়েছে। যদিও হারাকাতুশ শাবাব হামলার শুরুর দিকে প্রাথমিক এক বিবৃতিতে জানিয়েছে যে, মুজাহিদদের হাতে দুই কর্নেল সহ অন্তত ৫৯ সৈন্য নিহত এবং আরও কয়েকজন কর্নেল ও উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা সহ অনেক বেশি সংখ্যক সৈন্য আহত হয়েছে, বন্দী হয়েছে ডজন খানেক সৈন্য। সেই সাথে মোগাদিশু বাহিনীকে দেওয়া তুরস্ক ও কাতারের অসংখ্য সাঁজোয়া যান ধ্বংস করেছেন এবং আরও বহু সংখ্যক যান মুজাহিদগণ গনিমত হিসাবে অর্জন করেছেন।

অপরদিকে মোগাদিশু বাহিনী হামলার পর দাবি করেছে যে, তাদের বাহিনী হারাকাতুশ শাবাবের হামলা প্রতিহত করেছে এবং শহরের নিয়ন্ত্রণ ধরে রেখেছে। কিন্তু এমন দাবির সপক্ষে প্রমাণ হিসাবে কোনো ছবি বা ভিডিও দেখাতে পারেনি মোগাদিশু বাহিনী। তবে সরকারের এই দাবির কয়েক ঘন্টা পর হারাকাতুশ শাবাব ঠিকই আইল-ধীর শহরে মুজাহিদদের পরিচালিত হামলার কয়েক ডজন ছবি প্রকাশ করেছে। শাবাব প্রকাশিত এসকল ছবিতে দেখা যায়, ঘাঁটির বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে আছে গুলিবিদ্ধ সেনা সদস্যদের মৃতদেহ এবং ধ্বংস হয়ে যাওয়া সামরিক যান ও গাড়িগুলো।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন

পূর্ববর্তী নিবন্ধছত্তিশগড়ে মহিষ বহন করায় দুই মুসলিম যুবক কে পিটিয়ে হত্যা
পরবর্তী নিবন্ধফিলিস্তিনের জিহাদ || আপডেট – ৮ জুন, ২০২৪