ভারতে পঙ্গপালের হামলা পাপের ফল

0
324
ভারতে পঙ্গপালের হামলা পাপের ফল

সম্প্রতি ভারতে পঙ্গপালের হামলাকে পাপের ফল বলে মন্তব্য করেছেন বলিউডের নোংরা জগত থেকে ফিরে আসা জাইরা ওয়াসিম।

গত বৃহস্পতিবার নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে এমন মন্তব্য করেন তিনি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, ভারতে পঙ্গপালের হামলা পাপের ফল। আল্লাহর রোষে এই পরিণতি, কর্মফল। কোরআনের সুরা আ’রাফের এই আয়াত উল্লেখ করে টুইট করেন জাইরা ওয়াসিম।

পঙ্গপাল সম্পর্কিত কোরআনের ওই আয়াতের অর্থ হলো- ‘অতঃপর আমি তাদের ওপর প্লাবন, পঙ্গপাল, উকুন, ব্যাঙ ও রক্তের বিপদ পাঠিয়েছিলাম সুস্পষ্ট নিদর্শন হিসেবে, কিন্তু তারা ঔদ্ধত্য প্রকাশ করল। তারা ছিল এক অপরাধী জাতি।’

বিশেষভাবে উল্লেখ্য, ভারতে গেরুয়া সন্ত্রাসী মালাউনরাও মুসলিমদের উপর নানাভাবে অত্যাচার নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে। যার ফলে ভারতেও আল্লাহ তায়ালার অনে আযাব গযব পরিলক্ষিত হচ্ছে।

সম্প্রতি করোনা-আম্পান সংকটের মধ্যেই ভারতে হানা দেয় পঙ্গপাল। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নতুন করে এর ব্যাপকতা যেভাবে অতি দ্রুত গতিতে ছড়াতে শুরু করেছে কর্তৃপক্ষ যদি জুনের মধ্যে তা নিয়ন্ত্রণে আনতে না পারে তাহলে ধান, ভুট্টা, বেত, তুলা ও সয়াবিনসহ হাজার হাজার হেক্টর জমির ফসল ধ্বংস হয়ে যাবে।

সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, সম্প্রতি হানা দেওয়ার পর পঙ্গপাল ইতোমধ্যে সাতটি রাজ্যের প্রায় ৫০ হাজার হেক্টর ফসলি জমি ধ্বংস করেছে। ভারতে ঢুকে পড়া পঙ্গপালের ঝাঁক রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, গুজরাট ও হরিয়ানার পর এবার মহরাষ্ট্র, উত্তরপ্রদেশ এবং পাঞ্জাবে ফসল সাবাড় করছে।

বিশেষজ্ঞরা এই হুঁশিয়ারিও দিয়ে রেখেছেন যে, গ্রীষ্মকালীন ফসল যাতে গ্রাস করে ফেলতে না পারে তা নিশ্চিত করতে আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই ভারতের কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকারগুলোকে পঙ্গপালের হানার ব্যাপকতা নিয়ন্ত্রণের মধ্যে আনতে হবে। আর তা না হলে এর ক্ষতি হবে বিপুল।
২০১৯ সালেও একবার পঙ্গপালের দল ভারতে হানা দিয়েছিল।

এছাড়া বিভিন্ন সময় ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লি এবং এর আশপাশের এলাকায় ভূমিকম্প আঘাত হানে।
গত ২৯ মে শুক্রবার রাত ৯টা ৮ মিনিটের দিকেও একটি ভূমিকম্প আঘাত হানে।

এনডিটিভি বলছে, রিখটার স্কেলে ৪ দশমিক ৬ মাত্রার ভূমিকম্পে কেঁপে উঠেছে নয়াদিল্লি ও এর আশপাশের এলাকা। এ সময় আতঙ্কিত লোকজন বাড়ির বাইরে রাস্তায় নেমে আসেন।

প্রসঙ্গত, পাঁচ বছরের জনপ্রিয়তাকে উপেক্ষা করে ২০১৯ সালের জুন মাসে অভিনয়ের নোংরা জগত ছাড়ার ঘোষণা দেন কাশ্মীরি কিশোরী জাইরা ওয়াসিম।

ইনস্টাগ্রামে দেয়া এক পোস্টে অভিনয় থেকে নিজেকে সরিয়ে নেয়ার ঘোষণা দিয়ে তিনি বলেন, পাঁচ বছর আগে তিনি যে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, তা চিরকালের জন্য তার জীবন বদলে ফেলেছে। যে মুহূর্তে তিনি বলিউডে পা রেখেছিলেন, তার জন্য বিশাল জনপ্রিয়তার দরজা খুলে গিয়েছে। তিনি সাধারণ মানুষের আলোচনার মূল বিষয়বস্তু হয়ে উঠছিলেন, সাফল্যের প্রতীক হিসাবে তাকে তুলে ধরা হয়েছিলো এবং প্রায়ই তাকে তরুণদের রোল মডেল হিসেবে চিহ্নিত করা হতো।

কিন্তু, তিনি যা করতে চেয়েছিলেন বা হতে চেয়েছিলেন, তার কোনোটাই এগুলো নয়, তার কাছে সাফল্য এবং ব্যর্থতার যা ধারণা, তিনি সবে তা বুঝতে শুরু করেছেন।

এরপর জায়রা লিখেছেন,‘আমি বুঝতে পেরেছি আমি বহু দিন ধরেই অন্য একজন হয়ে ওঠার চেষ্টা চালাচ্ছিলাম। এই জগত আমাকে অনেক ভালবাসা, সমর্থন, প্রশংসা দিয়েছে, কিন্তু এই জগত আর যেটা করেছে তা হল আমাকে ক্রমশ অবমাননার দিকে ঠেলে দিয়েছে, ক্রমশ অসচেতনভাবে আমি আমার ঈমান (বিশ্বাস) থেকে বেরিয়ে এসেছি। কারণ আমি এমন একটা পরিবেশে কাজ করতাম যা ক্রমাগত আমার ঈমানের মাঝে এসে দাঁড়াত, ধর্মের সঙ্গে আমার সম্পর্ক বিপন্ন হয়ে পড়েছিল।’

সূত্র: সাউথ এশিয়া মনিটর

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন