ইসরাইলি নগ্ন আগ্রাসনকে “মানবতা বিরুধী যুদ্ধাপরাধ” বলায় জার্মান রাজনীতিবিদকে পদচ্যুত

0
720
ইসরাইলি নগ্ন আগ্রাসনকে “মানবতা বিরুধী যুদ্ধাপরাধ” বলায় জার্মান রাজনীতিবিদকে পদচ্যুত

ইউরোপ-আমেরিকার বাক-স্বাধীনতার আড়ালে লুকিয়ে আছে কুৎসিত চেহারা। ফিলিস্তিনি মুসলিমদের উপর দখলদার ইসরাইলি দমন-পীড়নের সমালোচনা করায় তুর্কি বংশোদ্ভূত জার্মান রাজনীতিবিদ এতেন এর্দিলকে (Ayten Erdil) ক্ষমতাসীন ক্রিস্টিয়ান ডেমোক্রেটিক ইউনিয়নের (এঞ্জেলা মের্কেলের দল) বার্লিন শাখার নির্বাহী পদ থেকে গত মঙ্গলবার ১১, মে,২০২১ জোড়পূর্বক পদত্যাগ করানো হয়েছে।

তাদের নিকট এতেনের অপরাধ ছিল, তিনি ফিলিস্তিনি মুসলিমদের বিরুদ্ধে দখলদার ইসরাইলি নগ্ন আগ্রাসনকে “মানবতা বিরুধী যুদ্ধ” বলে অবহিত করেছিলেন।

অবরুদ্ধ ফিলিস্তিনে মুসলিমদের প্রতি সন্ত্রাসী ইসরাইল নির্যাতনের যে স্টিম রুলার চালাচ্ছে মিডিয়ার বদৌলতে তা কারো অজানা নয়। আসলে পশ্চিমা গণমাধ্যমে তো কিঞ্চিৎই উঠে আসে বরং জুলুমের মাত্রা তার কয়েকগুণ বেশি।

ক্ষমতাসীন ক্রিস্টিয়ান ডেমোক্রেটিক ইউনিয়নের বার্লিন শাখায় কার্যনির্বাহী কমিটিতে কর্মরত এতেন আল আক্বসা মসজিদ কমপ্লেক্সে ইসরাইলি সামরিক বাহিনী কর্তৃক আক্রমণ ও নামাজরত মুসল্লীদের উপর ন্যাক্কারজনক হামলার পর ১০, মে, ২০২১, সোমবার তার ব্যক্তিগত ফেইসবুক একাউন্টে অভিশপ্ত ইসরাইলি প্রশাসনের সমালোচনা করেছিলেন।

এর্দিল বলেছিলেন- “যখন কেউ এই অপরাধীদের এবং তাদের প্রকাশ্য অপরাধকে, মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ বলে ডাকছে তখন সেটি তো ইহুদি বিদ্বেষ নয়।”

পরে ক্রিশ্চিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ইউনিয়ন তার প্রকাশিত বক্তব্যে জানায়- “এর্দিলের মন্তব্যটি জার্মান ক্রিশ্চিয়ান ডেমোক্র্যাটদের ইসরাইল নীতিকে প্রভাবিত করবে না। আমরা স্পষ্টই তার বক্তব্যের সাথে একমত নই। আমরা তার সাথে আলাপ করেছি। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কার্যনির্বাহী কমিটি থেকে সে তাৎক্ষণিকভাবে পদত্যাগ করেছে।”

সাম্প্রতিক দিনগুলোতে দখলদার ইহুদীদের নগ্ন আগ্রাসন ও সংঘাত, বিশেষ করে পশ্চিম তীর ও পূর্ব জেরুজালেমে ফিলিস্তিনি পরিবারগুলোর বসতিতে তাদের উচ্ছেদ অভিযান বিশ্ববাসীর কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে।

গত ৭,মে শুক্রবার অভিশপ্ত ইসরাইল ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে বিপুলসংখ্যক সেনা মোতায়েন করে। এরপর ১০ মে সোমবার, ইহুদি দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে বিক্ষোভরত ফিলিস্তিনি মুসলিমদের প্রথম ক্বিবলা মসজিদুল আক্বসায় নামাজরত মুসল্লীদের উপর রাবার বুলেট, টিয়ারগ্যাস ও স্টেন গ্রেনেড নিয়ে ইসরাইল ঘৃণ্য আক্রমণ চালিয়ে শতশত মুসলিমকে আহত ও শহীদ করেছে।

ফিলিস্তিনি রেড ক্রিসেন্ট মতে পূর্ব জেরুজালেমে ৭ থেকে ১০ মে পর্যন্ত ৯১৫ ফিলিস্তিনি মুসলিম আহত হয়েছেন।

সর্বশেষ তথ্যমতে গাজা ও ফিলিস্তিনি ভূখন্ডে ইসরাইলি বিমান হামলায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাড়িয়েছে ৮৩ জন, যাদের মধ্যে ১৭ শিশু, ৭ নারী রয়েছেন। আহত ৪৮৭ জন।

আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী, পশ্চিম তীর ও পূর্ব জেরুজালেম অধিকৃত অঞ্চল বলে বিবেচিত, যেখানে ইহুদি দখদারিত্ব সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।

উল্লেখ্য, ১৯৬৭ সালের আরব-ইসরাইল যুদ্ধে ইসরাইল বেআইনিভাবে পূর্ব জেরুজালেম দখল করে নেয় ও ১৯৮০ সালে পুরো শহর নিজেদের সাথে যুক্ত করে দেয়, যা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় কর্তৃক এখনো স্বীকৃত নয়।

https://i.top4top.io/p_1959rq4ne0.jpg

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন