স্পেনে বর্ণবাদী সেনা কর্মকর্তার গুলিতে অভিবাসী মুসলিম নিহত

0
1083
স্পেনে বর্ণবাদী সেনা কর্মকর্তার গুলিতে অভিবাসী মুসলিম নিহত

পশ্চিমা বিশ্বে নতুন করে দানা বাধা বর্ণবাদী হামলার জেরে এবার স্পেনে এক মরক্কোর মুসলিম নিহত হয়েছেন।

স্থানীয় মিডিয়া সূত্রে জানা যায়, গত ১৩ জুন, রবিবার স্পেনের মাজারোন শহরে এক ক্যাফেতে বন্ধুদের সাথে আড্ডা দেয়ার সময় মরক্কোর অভিবাসী ইউনেস বিলালকে (৩৭) স্পেনের বর্ণবাদী সাবেক এক সেনা কর্মকর্তা গুলি করে হত্যা করেছে। ইউনেস স্পেনের দক্ষিণাঞ্চলীয় মার্সিয়া শহরে বসবাস করতেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, হত্যাকারী সাবেক ঐ সেনা কর্মকর্তা ইউনেসের সাথে লম্বা সময় ধরে কথা বলায় ক্যাফের ওয়েটারকে প্রথমে ভৎসনা করে। রাগান্বিত ঐ সেনা কর্মকর্তা এসময় মুসলিমদেরকেও উচ্চস্বরে গালি দিতে থাকে।

এমন বর্ণবাদী আচরণে ইউনেস নিজ আসন থেকে উঠে দাড়ান এবং ঐ সেনা কর্মকর্তাকে মুসলিম ও ওয়েটারদের সম্মান দিতে বলেন।

পরবর্তীতে হত্যাকারী ঐ সেনা কর্মকর্তা তার বাড়িতে চলে যায়, নিজ কাপড় পরিবর্তন করে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে ক্যাফেতে পুনরায় ফিরে আসে।

নিহতের পরিবার স্পানিশ পত্রিকা এল পাইসকে জানায়,”কোনকিছু না বলে ঐ সেনা কর্মকর্তা ইউনেসের সামনে এসে দাঁড়ায়। বাতাসে গুলি চালিয়ে সে বলে,”সাহস থাকলে এখন উঠে দাড়াও!” “ইউনেস উঠে দাড়ালে, ঐ সেনা কর্মকর্তা ইউনেসের বুকে তিন রাউন্ড গুলি ছুড়ে।”

ইউনেসের স্ত্রী ও শিশু তখন হত্যাকাণ্ডের কাছাকাছি অবস্থান করছিল। তাদেরকে ডেকে আনা হলে, তারা ইউনেসের মৃত দেহ মাটিতে পড়ে থাকতে দেখে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, স্পেনে, বিশেষকরে দেশটির মার্সিয়া অঞ্চলে ক্রমবর্ধমান ইসলাম বিদ্বেষী মনোভাবের এটি একটি ক্ষুদ্র বর্হিঃপ্রকাশ মাত্র।

উল্লেখ্য, গত ফেব্রুয়ারী মাসে স্পেনের মার্সিয়া শহরের সান জাভিয়ার অঞ্চলে বর্বর ভানডাল জনগোষ্ঠীর লোকেরা মুসলিমদের মসজিদে আগুন ধরিয়ে দেয়ার অপচেষ্টা চালায়। তারা মসজিদের জানালাগুলোতে “ইসলাম ধর্মের বিনাশ চাই”- লিখে রেখে যায়।

স্প্যানিশ দৈনিক এল ডায়ারিও পত্রিকায় স্থানীয় বর্নবাদ বিরোধী গ্রুপ “কনভিভির সিন রেসিজমের” মুখপাত্র জুয়ান গাইরার্দো জানান,”বহু অভিবাসী খামারে কাজ করতে এ অঞ্চলে আগমনের ফলে দীর্ঘদিন ধরে বর্ণবাদ এ অঞ্চলে উত্তরোত্তর বেড়ে চলেছে। অভিবাসীরা অত্যন্ত অনিশ্চয়তার মাঝে এখানে বসবাস করছেন।”

বর্ণবাদ বা জাতিগত বৈষম্য নির্মূল পরিষদের প্রেসিডেন্ট আন্তমি তুসিজে টুইটারে টুইট করে বলেন, “এই হত্যাকাণ্ডটি কাঠামোগত বর্ণবাদের উপরিভাগের কিঞ্চিৎ প্রতিক্রিয়া মাত্র…প্রতিটি বর্ণবাদী কর্মকান্ডে কার্যত কোন অজুহাত লাগে না, সমস্যাটিকে চিহ্নিত না করার প্রতিটি অপচেষ্টা পরবর্তীতে মারাত্মক বিপর্যয়ের অবতারণা করে।”

এদিকে, স্পেনের মাজারোনে বসবাসকারী স্থানীয় মুসলিমরা ইউনেসের লাশ জন্মভূমি মরক্কোর বেনি মেল্লাল শহরে পাঠানোর পূর্বে জানাজার নামাজে শরীক হয়েছেন।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন