ভারতীয় সিরিয়াল ‘ক্রাইম পেট্রোল’ দেখে খুনের কৌশল শিখে পরিবারে তিনজনকে হত্যা

1
1072
ভারতীয় সিরিয়াল ‘ক্রাইম পেট্রোল’ দেখে খুনের কৌশল শিখে পরিবারে তিনজনকে হত্যা

একাধিক ব্যক্তিকে হত্যা করার কৌশল শিখতে ভারতের সিরিয়াল ‘ক্রাইম পেট্রোল’ দেখা শুরু করে। প্রথমে ঘুমের ওষুধ প্রয়োগ করে মা–বাবা, বোনসহ পাঁচজনকে অচেতন করেন। এরপর হাত-পা বেঁধে শ্বাসরোধে তিনজনকে খুন করে নিজেই ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে পুলিশকে জানায়। দুই মাস আগেও তিনি একবার তরমুজের জুসের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে পরিবারের সদস্যদের হত্যার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছিলেন। রাজধানীর কদমতলীতে বাবা মাসুদ রানা, মা মৌসুমি ইসলাম ও বোন জান্নাতুল ইসলাম খুনের ঘটনায় গ্রেপ্তার মেহজাবিন ইসলাম একাই তিনজনকে খুন করেছে।

পুলিশ জানায়, মেহজাবিন জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছেন, দক্ষিণ ভারতের একটি সিনেমা দেখে তিনি সায়ানাইড (রাসায়নিক দ্রব্য, বিষ হিসেবে ব্যবহৃত হয়) প্রয়োগ করে সবাইকে খুন করার পরিকল্পনা করেন। ওই সিনেমায় সায়ানাইড প্রয়োগ করে একই পরিবারের ১১ জনকে খুন করতে দেখানো হয়। বিভিন্ন উৎস থেকে সায়ানাইড সংগ্রহ করারও চেষ্টা করেন। কিন্তু সেটা পারেননি। এ কারণে ক্রাইম পেট্রোলে দেখা কৌশলেই খুনের পরিকল্পনা করেন। পাশাপাশি পাবজি গেমেও (অনলাইনে অ্যাকশনধর্মী গেম) আসক্ত ছিলেন তিনি।

হত্যা মামলা

এ ঘটনায় শনিবার দিবাগত রাতে মেহজাবিন ইসলাম ও তাঁর স্বামী শফিকুল ইসলামকে আসামি করে হত্যা মামলা করেছেন নিহত মাসুদ রানার ভাই শাখাওয়াত হোসেন। কদমতলী থানায় করা মামলায় বাদী উল্লেখ করেন, শফিকুলের প্ররোচনায় মেহজাবিন তিনজনকে খুন করে।

খুনের কারণ সম্পর্কে তিনি বলেন, কিছু বিষয় নিয়ে শিশুকাল থেকেই মায়ের প্রতি মেহজাবিনের ক্ষোভ ছিল। পারিবারিক সম্পর্ক নিয়ে তিনি হতাশ ছিলেন। মধ্যপ্রাচ্যে থাকা অবস্থায় তাঁর বাবা আবার বিয়ে করেন। সেখানে তাঁর দুই ছেলেসন্তান রয়েছে। এ নিয়ে বাবার প্রতি তাঁর ক্ষোভ ছিল। তিন মাস আগে তাঁর বাবা দেশে ফেরেন। ছোট বোনের প্রতিও মেহজাবিনের ক্ষোভ ছিল। এসব কারণেই তিনি মা–বাবা ও বোনকে হত্যা করেন।

পুলিশ জানায়, মেহজাবিন তাঁর মা–বাবা ও বোনকে চায়ের সঙ্গে বেশি পরিমাণে ঘুমের ওষুধ প্রয়োগ করেছিলেন। স্বামী ও সন্তানকে কম ঘুমের ওষুধ প্রয়োগ করেন। তাঁদের হত্যার উদ্দেশ্য তাঁর ছিল না। তাঁর এই ব্যাখ্যার বিষয়টি আরও যাচাই–বাছাই করার প্রয়োজন রয়েছে। তিনজনকে খুন করার পরও তাঁর মধ্যে কোনো অনুশোচনা নেই। তাঁর দাবি, খুনের পর তিনি স্বস্তি অনুভব করছেন।

১টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন