কাশ্মীর | কসাই মোদীর সমালোচনা করায় মানবাধিকার কর্মী গ্রেফতার!

মাহমুদ উল্লাহ্‌

3
514
কাশ্মীর | কষাই মোদীর সমালোচনা করায় মানবাধিকার কর্মী গ্রেফতার!

হিন্দুত্ববাদীরা ভারতকে কথিত বৃহত গণতান্ত্রিক দেশ বলে প্রচার করে। অথচ সত্য প্রকাশ করার মত মৌলিক অধিকারের চর্চা করার দায়েই সেখনে সাংবাদিকদের জেলে যেতে হয়, সমলোচকদের মিথ্যা মামলা দিয়ে আটক করা হয়।

কাশ্মীরের সাংবাদিক খুররম পারভেজ ভারতে ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকারের অন্যতম সমালোচক। মোদী সরকারের কঠোর সমালোচনা করায় কাশ্মীরি এই মানবাধিকার কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়। খুররম পারভেজের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসে অর্থায়ন ও ষড়যন্ত্রের অভিযোগ আনা হয়। সন্ত্রাসবিরোধী যে কঠোর আইনে তিনি গ্রেফতার হয়েছেন, তাতে জামিন পাওয়া প্রায় অসম্ভব। এটি ‘মানবাধিকার রক্ষকদের মুখ বন্ধ করার ঘৃণ্য অপচেষ্টা’ বলেই মনে করছেন বিশ্লেষকগণ।

উল্লেখ্য। খুররম পারভেজের সংগঠন জম্মু কাশ্মীর কোয়ালিশন অব সিভিল সোসাইটি (জেকেসিসিএস) উপত্যকা অঞ্চলটিতে সরকারি বাহিনীর হাতে মানবাধিকার লঙ্ঘন এবং বাড়াবাড়ির বিষয়ে বেশ কয়েকটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। তিনি এশিয়ান ফেডারেশন এগেইনস্ট ইনভলন্টারি ডিসঅ্যাপিয়ারেন্সেরও (আফাদ) চেয়ারপারসন। এটি একটি আন্তর্জাতিক অধিকার সংস্থা, যা কাশ্মীরসহ এশিয়ার বিভিন্ন জায়গায় মানুষজন গুম হওয়ার ঘটনা পর্যবেক্ষণ করে থাকে।

এর আগে ২০১৬ সালেও একবার গ্রেফতার হয়েছিলেন খুররম। তখন সুইজারল্যান্ডে জাতিসংঘ মানবাধিকার কাউন্সিলের ৩৩তম অধিবেশনে যোগ দিতে বাধা পাওয়ার একদিন পরেই গ্রেফতার হন তিনি। খুররমকে তখন বিতর্কিত জননিরাপত্তা আইনে গ্রেফতার করা হয়েছিল, যাতে অভিযুক্তকে দুই বছর পর্যন্ত বিনাবিচারে আটকে রাখা যায়। তবে আন্তর্জাতিক নানা গোষ্ঠীর ব্যাপক চাপের মুখে ৭৬ দিন পর মুক্তি পান এ মানবাধিকার কর্মী।

গত সোমবার (২২ নভেম্বর) কাশ্মীরের শ্রীনগরে খুররমের বাসা ও জেকেসিসিএস অফিসে তল্লাশি চালায় ভারতের জাতীয় তদন্ত সংস্থা (এনআইএ)। প্রথমে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে গেলেও পরে গ্রেফতার দেখানো হয়।

খুররমের বিরুদ্ধে অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র, সরকারের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরুর অপচেষ্টা এবং সন্ত্রাসী সংগঠনের জন্য তহবিল সংগ্রহসহ বেআইনি কার্যকলাপ (প্রতিরোধ) আইনের বিভিন্ন ধারায় অভিযোগ এনেছে ভারতীয় পুলিশ।

কাশ্মীরের পরিস্থিতি দখলদার ভারতীয় হিন্দুত্ববাদীদের জন্য দিন দিন কঠিন হয়ে উঠছে। প্রতিরোধ যোদ্ধা ও স্বাধীনতাকামীদের ব্যপক প্রতিরোধ ও হামলার মুখে টিকতে না পেরে এখন দখলদাররা সেখানে বেসামরিক মুসলিমদের গুম হত্যা অপহরণ ও গ্রেফতারের মহোৎসব শুরু করেছে। নিজেদের পতন টের পেয়েই দখলদার বাহিনী এমন আগ্রাসী আচরণ শুরু করেছে বলে মনে করছেন উপত্যকার অধিবাসী মুসলিমরা।

তথ্যসূত্র:
——-
ভারতে মোদীর সমালোচক কাশ্মীরি মানবাধিকার কর্মী গ্রেফতার
https://tinyurl.com/yuwkbkaz

3 মন্তব্যসমূহ

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন