‘এবার মুসলিম নারীদের প্রকাশ্যে বাড়ি থেকে বের করে ধর্ষণ করার হুমকি’ হিন্দুত্ববাদী বজরং মুনি দাসের

উসামা মাহমুদ

0
1158
‘এবার মুসলিম নারীদের প্রকাশ্যে বাড়ি থেকে বের করে ধর্ষণ করার হুমকি’ হিন্দুত্ববাদী বজরং মুনি দাসের

ভারতের হিন্দুত্ববাদীরা হিন্দু যুবকদেরকে মুসলিম নারীদের ধর্ষণের আহ্ববান জানিয়ে আসছে বহুদিন আগে থেকেই। তবে এবার কোন ধরণের রাখডাক না রেখে উন্মত্ত হিন্দু জনতার সমাবেশে লাউডস্পিকারে মুসলিম নারীদের প্রকাশ্যে বাড়ি থেকে বের করে ধর্ষণ করার হুমকি দিয়েছে হিন্দুত্ববাদী বজরং মুনি দাস।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওতে বজরং মুনি দাস নামে এক হিন্দু মহন্তকে চিৎকার করে বলতে শোনা যায়, মুসলিম মহিলাদের তাদের বাড়ি থেকে অপহরণ করবে এবং তাদের প্রকাশ্যে ধর্ষণ করবে।

ভিডিওটি ২ এপ্রিল নবরাত্রি এবং হিন্দু নববর্ষ উপলক্ষে একটি মিছিল চলাকালীন উত্তর প্রদেশের সীতাপুর এলাকার একটি মসজিদ “শেশে ওয়ালি মসজিদ” এর সামনে করা হয়।

হিন্দুত্ববাদী সন্ত্রাসী মুনি দাস লাউড স্পীকারে বলছে, ” আমি মুসলিমদের বলছি যে, যদি খয়রাবাদে একটি অবিবাহিত হিন্দু মেয়ে আপনাদের প্রতি ঝুকে পড়ে, তাহলে আমি আপনার মেয়ে এবং পুত্রবধূদেরকে প্রকাশ্যে আপনার বাড়ি থেকে বের করে এনে ধর্ষণ করব।” .

হিন্দুত্ববাদী মুনি দাস সীতাপুরের খয়রাবাদ শহরে মহর্ষি শ্রী লক্ষণ দাস উদাসিন আশ্রমের মহন্ত। মহন্ত একজন হিন্দু ধর্মীয় উচ্চপদস্থ, বিশেষ করে হিন্দু ধর্মের মন্দিরের প্রধান বা মঠের প্রধান। ইতিপূর্বেও অনেক হিন্দুত্ববাদী কথিত সাধুরা মুসলিম নারীদের ধর্ষণের উসকানি দিয়েছে। এমনকি হিন্দুত্ববাদী যোগি আদিত্যনাথ মুসলিম নারীদের কবর থেকে তুলে ধর্ষণের কথা বলেছিল।

ঘটনার ৬ দিন পার হয়ে গেলেও হিন্দুত্ববাদী দাসের বিরুদ্ধে কোনও এফআইআর দায়ের করা হয়নি এবং তাকে গ্রেপ্তারও করেনি হিন্দুত্ববাদী প্রশাসন। অবশ্য এদেরকে লোক দেখানো গ্রেফতার করা হলেও জেলহাজতে এরা মেহমানের মতোই থাকে, আর দ্রুতই জামিনে বের হয়ে যায়। জামিনে বেড়িয়ে এসে এরা আবার আগের চেয়েও জোড়ালো কণ্ঠে ইসলাম ও মুসলিমদের বিরুদ্ধে ঘৃণা ও জিঘাংসা ছড়াতে থাকে। এর প্রমাণ গত মাসেক আগে উগ্রবাদী হিন্দু মহন্ত জ্যোতি নরসিংহানন্দের গ্রেফতার নাটক এবং দ্রুতই জামিনে মুক্তও হয়ে আরও প্রবল সুরে ইসলামবিদ্বেষী বক্তব্য দেওয়ার মাধ্যমেই পাওয়া গিয়েছে।

আর জাফরান-পরা এই হিন্দুত্ববাদী মহন্ত দাস স্থানীয় পুলিশদের সাথেই ছিল। হিন্দুত্ববাদী পুলিশ এবং একটি বিশাল হিন্দু জনতা তাকে ঘিরে নিরাপত্তা দিয়েছে। ভিডিওতে, মুনি দাসের চিৎকার করে বলা প্রতিটি মুসলিম বিদ্বেষী শব্দে উগ্র হিন্দু জনতা হাততালি ও হিন্দুত্ববাদী স্লোগান দিতে দেখা যায়।

২ মিনিট ১০ সেকেন্ডের ভিডিওটি শুরু হয় হিন্দুত্ববাদী দাস জনতাকে জয় শ্রী রাম বলতে বলে। যে স্লোগান দিয়ে হিন্দুত্ববাদীরা মুসলিমদের উপর হামলা করে থাকে।

উল্লেখ্য, হিন্দুত্ববাদী নরেন্দ্র মোদির কেন্দ্র সরকার এবং হিন্দুত্ববাদী যোগী আদিত্যনাথের রাজ্য সরকার প্রকাশ্যে বিদ্বেষপূর্ণ বক্তৃতা সহ মুসলিমদের বিরুদ্ধে সমন্বিত এবং বিস্তৃত আক্রমণকে উৎসাহিত করছে।

বিশ্লেষকরা বলছেন যে মুসলিম বিরোধী সহিংসতার আহ্বান – এমনকি গণহত্যার প্রকাশ্য আহ্বান ও মুসলিম নারীদের ধরসনের আহ্বান – প্রান্তিক পর্যায় থেকে এখন মূলস্রোতে চলেে এসেছে। ভারতে এখন সিমিত পর্যায়ে গণহত্যা শুরু হয়ে গিয়েছে, এবং যেকোন সময় ব্যাপক আকারে মুসলিম গণহত্যা শুরু হয়ে যেতে পারে বলেই মনে করছেন তারা।

এমন সংকটাপন্ন অবস্থায় নিজেদের জান মাল ও মুসলিম নারীদের ইজ্জত রক্ষায় মুসলিদেরকেই এগিয়ে আসার আহ্‌বান জানিয়েছেন ইসলামিক চিন্তাবিদগণ।

তথ্যসূত্র:
——–
1. UP: Hindu monk on loudspeaker in police presence says “will rape Muslim women in open”
https://tinyurl.com/4yzf2sws
2. video link:
https://tinyurl.com/2p923kun

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন