এবার রুশ বাহিনীর উপর আল-কায়েদার হামলা : নিহত ৪ এর বেশি

ত্বহা আলী আদনান

2
850

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ মালির বুনি এবং দোআনজার অঞ্চলে ২টি সফল হামলা চালিয়েছেন আল-কায়েদা সংশ্লিষ্ট ‘জেএনআইএম’। এতে বেশ কিছু রাশিয়ান ভাড়াটিয়া ওয়াগনার সদস্য নিহত হয়েছে।

সম্প্রতি আল-কায়েদা সংশ্লিষ্ট ইসলামি প্রতিরোধ বাহিনী জামা’আত নুসরাতুল ইসলাম ওয়াল মুসলিমিন (জেএনআইএম) এর মিডিয়া শাখা আয-যাল্লাকা একটি বিবৃতি জারি করেছে। উক্ত বিবৃতিতে দুটি পৃথক হামলায় বেশ কিছু ওয়াগনার ভাড়াটে সদস্যকে হত্যার তথ্য নিশ্চিত করেছে দলটি।

বিবৃতি অনুযায়ী, মুজাহিদগণ তাদের প্রথম অভিযানটি চালান গত ৬ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার মালির দোআনজার অঞ্চলে। যেখানে মুজাহিদগণ গাদ্দার মালিয়ান সামরিক বাহিনী ও রুশ ভাড়াটিয়াদের একটি যৌথ সামরিক কনভয়ে হামলা চালান। যার মাধ্যমে সামরিক বাহিনীর একটি গাড়ি উড়িয়ে দেওয়া হয়। এতে গাদ্দার মালিয়ান সেনাবাহিনীর বেশ কিছু সৈন্য হতাহত হওয়া ছাড়াও রুশ বাহিনীর ২ সৈন্য নিহত হয়েছে। হামলার পরেও যাদের দেহাবশেষ দীর্ঘক্ষণ ধরে ময়দানে পড়ে ছিলো।

মুজাহিদগণ তাদের দ্বিতীয় সফল আক্রমণটি চালান গত ১২ সেপ্টেম্বর বুনি অঞ্চলের গাসি এলাকায়। যেখানে দখলদার রুশ ভাড়াটে সৈন্যদের একটি টহলরত দলকে টার্গেট করে হামলা চালান মুজাহিদগণ। এসময় মুজাহিদিনরা বোমা হামলা চালিয়ে রুশ ভাড়াটে সেনাদের একটি মোটরসাইকেল উড়িয়ে দেন। ফলশ্রুতিতে এখানেও আরও ২ ওয়াগনার ভাড়াটে সৈন্য নিহত হয়। আলহামদুলিল্লাহ্।

এই হামলার কারণ হিসাবে আল-কায়েদার পক্ষ থেকে জানানো হয় যে, সম্প্রতি এই ভাড়াটিয়ারা তুয়ারেগ গোত্রের দশজন নিরপরাধ লোককে শহীদ করেছে। আর তাদের রক্তের বদলা নিতেই এই হামলাগুলো চালানো হয়েছে।

বিবৃতির শেষে বলা হয় যে, “আমরা গাদ্দার মালিয়ান সেনাবাহিনী এবং দখলদার রাশিয়ান ভাড়াটে অপরাধীদের বলছি, জেনে রাখুন! মুসলমানদের রক্ত ​​বৃথা যাবে না। আমরা আমাদের জনগণের প্রতিটি রক্তের ফোঁটার জন্য প্রতিশোধ নেবো। ইনশাআল্লাহ।

2 মন্তব্যসমূহ

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন