ভারতের মুসলিমবিরোধী নাগরিকত্ব আইন ঘৃণাব্যঞ্জক ও বৈষম্যমূলক:- আল্লামা কাসেমী

0
688
ভারতের মুসলিমবিরোধী নাগরিকত্ব আইন ঘৃণাব্যঞ্জক ও বৈষম্যমূলক:- আল্লামা কাসেমী

সম্প্রতি ভারতীয় সংসদে পাশ হওয়া নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনকে মুসলমানদের প্রতি ঘৃণাব্যঞ্জক ও বৈষম্যমূলক উল্লেখ করে এর নিন্দা জানিয়েছেন বাংলাদেশের প্রখ্যাত আলেম আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী।

গত (১৫ ডিসেম্বর) রোববারে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি আরও বলেন, আমরা বিস্ময়ের সাথে লক্ষ্য করছি ভারতে সন্ত্রাসী দল বিজেপি সরকার ক্ষমতাসীন হওয়ার পর নগ্নভাবে একের পর এক মুসলমানদের প্রতি ঘৃণা ও আক্রমণাত্মক নীতি গ্রহণ করে সে দেশের মুসলমানদের জান-মাল’সহ সার্বিক নিরাপত্তাকে চরম হুমকির মুখে ঠেলে দিয়েছে এবং বাংলাদেশের উপর বহুবিদ হুমকি তৈরি করেছে।

তিনি বলেন, বিজেপি সরকারের প্রথম মেয়াদে গো-রক্ষার নাম করে মুসলমানদের উপর সহিংস আক্রমণ চালিয়ে সারা ভারতের মুসলমানদের জানমালের নিরাপত্তা চরম হুমকির মুখে ঠেলে দিয়েছিল। ভারতের ঐতিহাসিক স্থানসমূহের মুসলিম নাম বদলিয়ে দিয়েছে। শিক্ষা, সংস্কৃতি, রাজনীতি ও চাকুরিতে মুসলমানদের জন্য বহুবিধ বাধা তৈরি করেছে। ঘর ওয়াফেসির নামে মুসলমানদের উপর হিন্দুত্বকরণের প্রকল্প চালিয়েছে।

তিনি বলেন, দ্বিতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আসার পর কোন রাখঢাক ছাড়াই মুসলমানদের তালাক আইন রদ করে আক্রমণের সূচনা করেছে। ইতিমধ্যেই এনআরসির নামে আসামের লাখ লাখ মুসলমানের নাগরিকত্ব কেড়ে নিয়ে তাদেরকে বাংলাদেশে ঠেলে দেওয়ার তোড়জোড় চালাচ্ছে। ভারতীয় সংবিধান থেকে ৩৭০ ও ৩৫/এ ধারা বিলোপ করে মুসলমান সংখ্যাগরিষ্ঠ রাজ্য জম্মু ও কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নিয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের প্রশ্নবিদ্ধ রায়ে অযোধ্যার ৫০০ বছরের পুরনো ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদের জায়গায় রামমন্দির নির্মাণের আগ্রাসী ভূমিকা পাল করছে। ভারত থেকে মুসলমানদেরকে উচ্ছেদ করার এনআরসি প্রকল্পকে সহজতর করতে এবার মুসলিমবিরোধী নাগরিকত্ব আইন পাশ করেছে।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন