সিলেটে করোনাভাইরাস পরীক্ষক না থাকায় ৩ ঘণ্টা আটকা ১২ যাত্রী

1
575

সিলেটের এমএজি ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে করোনাভাইরাস পরীক্ষক উপস্থিত না থাকায় প্রায় ৩ ঘণ্টা আটকা পড়েছিলেন ১২ জন প্রবাসী। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সৌদি আরব থেকে আসা এই যাত্রীরা ঢাকা থেকে সিলেট যান। কিন্তু ওসমানী বিমানবন্দরে থার্মাল স্কানারে করোনা পরীক্ষা করার কেউই না থাকায় সন্ধ্যা পৌনে ৭টা থেকে রাত সোয়া ৯টা পর্যন্ত প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা আটকে ছিলেন তারা। খবর- কালের কণ্ঠ

বিমানের ফ্লাইটে সিলেট যাওয়া এক যাত্রী জকিগঞ্জের রাসেল আহমদ জানান, সৌদি থেকে তারা বিকেলে ঢাকায় পৌঁছান। পরে সেখান থেকে সিলেট। কিন্তু বিমানবন্দরে আসার পর করোনাভাইরাস পরীক্ষার কথা বলে তাদের আটকে রাখা হয়। কিন্তু চিকিৎসক উপস্থিত না থাকায় প্রায় ৩ ঘণ্টা তাদের বসিয়ে রাখে পুলিশ। এ কারণে তাদের নিতে আসা স্বজনরাও ভোগান্তিতে পড়েন।

এ বিষয়ে সূত্র জানায়, ওসমানী বিমানবন্দরে আগে করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য অ্যানালগ থার্মোমিটার ছিল। যা পুরোপুরি কাজ করছিল না। এরপর গত মঙ্গলবার নতুন থার্মাল স্ক্যানার স্থাপন করা হয়। এর জন্য তিনজন পরীক্ষকও নিয়োজিত করা হয়। কিন্তু একটি নির্দিষ্ট সময় পরে তারা চলে যান।

এ ব্যাপারে বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশন পুলিশ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইব্রাহিম গণমাধ্যমকে বলেন, চিকিৎসক না থাকায় যাত্রীদের আটকে রাখা হয়। এর আগে বিকেলে ঢাকা থেকে আসা বিজি-৫০৫ ফ্লাইটে আসা যাত্রীরাও স্ক্যান না করেই বিমানবন্দর ত্যাগ করেন। তবে ওই ফ্লাইটে কোনো বিদেশ ফেরত যাত্রী ছিলেন না। তারপরও বর্তমান প্রেক্ষাপট বিবেচনায় রেখে চিকিৎসকদের সার্বক্ষণিক উপস্থিত থাকা প্রয়োজন।

১টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন