সোমালিয়া | বুলু-মারির জেলা বিজয় করে নিয়েছেন আশ-শাবাব মুজাহিদিন

ত্বহা আলী আদনান

1
1617
সোমালিয়া | বুলু-মারির জেলা বিজয় করে নিয়েছেন আশ-শাবাব মুজাহিদিন
সুবিধামত ফন্ট ছোট বড় করুনঃ

সোমালিয়ার শাবেলি রাজ্যের গুরুত্বপূর্ণ একটি জেলায় বীরত্বপূর্ণ বিজয় অভিযান চালিয়েছেন ইসলামি প্রতিরোধ বাহিনী আশ-শাবাব। সেই সাথে তীব্র লড়াইয়ের পর রাজ্যটির গুরুত্বপূর্ণ জেলাটির নিয়ন্ত্রণও নেন আশ-শাবাব যোদ্ধারা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত ৩১ মার্চ বৃহস্পতিবার বিকালে, দক্ষিণাঞ্চলিয় রাজ্যটির বুলু-মারির শহরের সোমালি গাদ্দার সেনাদের (এফজিএস) দুটি ঘাঁটিতে একযোগে তীব্র হামলার ঝড় তুলেন প্রতিরোধ বাহিনী হারাকাতুশ শাবাবের বীর মুজাহিদিন। প্রতিরোধ যোদ্ধারা ঘাঁটি ২টিতে এতটাই দক্ষতার সাথে হামলা চালিয়েছেন যে, এতে করে মোগাদিশুকেন্দ্রীক মিলিশিয়াদের যুদ্ধের মনোবল একেবারেই ভেঙে পড়ে এবং কাপুরুষ সেনারা পালিয়ে যায়। ফলে অল্প সময়ের মধ্যে মুজাহিদগণ ঘাঁটি ২টির সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নিতে সক্ষম হন।

প্রতিরোধ বাহিনী আশ-শাবাবের কর্মকর্তারা আল-আন্দালুস রেডিওকে বলেছেন যে, তীব্র লড়াইের পর তাদের বাহিনী বুলু-মারির শহরে প্রবেশ করেছেন। এসময় মুজাহিদগণ প্রথমে গাদ্দার সেনাদের ঘাঁটিগুলো বিজয় করেন। এরপর শহরের আশপাশে ব্যাপক লড়াইয়ের পর মুজাহিদগণ শহরের নিয়ন্ত্রণও নেন।

যুদ্ধ শেষ হওয়ার পর আশ-শাবাবের কর্মকর্তারা জনসাধারণের সাথে কথা বলেন এবং তাদের সমস্যার কথাগুলোও জেনেছেন। সমাবেশ শেষে আশ-শাবাব মুজাহিদিন পুরো শহরটি টহল দেন। শহরটিতে টহল দেওয়ার সময় রাস্তায় রাস্তায় প্রচুর সংখ্যক মানুষ তাদেরকে স্বাগত জানান।

এদিকে শহর ছেড়ে পালিয়ে যাওয়া গাদ্দার সেনারা পাশের শহরে অবস্থানরত ক্রুসেডার উগান্ডান সৈন্যদের একটি ঘাঁটিতে আশ্রয় নেয়। ফলে মুজাহিদগণ উক্ত ঘাঁটিটি লক্ষ্য করে পর পর ৩০ এর বেশি রেকট হামলা চালান।

সাম্প্রতিক সময়ে আল-কায়েদার চলমান বিজয়াভিযানের মাধ্যমে আরও একটি শহর ইসলামি শরিয়াহর ছায়াতলে যুক্ত হল।

১টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন

পূর্ববর্তী নিবন্ধবিজয়ের মাস: মাহে রমাদানের গৌরবদীপ্ত বিজয়-সিরিজ | | পর্ব-১ | | সারিয়্যায়ে হামজা ইবনে আব্দুল মুত্তালিব: ইসলামের প্রথম যুদ্ধাভিযান
পরবর্তী নিবন্ধসামরিক ঘাঁটিতে ‘টিটিপির’ ইস্তেশহাদী ব্যাটালিয়নের দুর্দান্ত এক অপারেশনে ৩০ গাদ্দার সেনা খতম