ফিলিস্তিনের জিহাদ || আপডেট – ২১শে ডিসেম্বর, ২০২৩

- সাইফুল ইসলাম

0
342
সুবিধামত ফন্ট ছোট বড় করুনঃ

গাজার অর্ধেকের বেশি মানুষ তথা ৫ লাখ ৭৬ হাজারেরও বেশি ফিলিস্তিনি তীব্র ক্ষুধা ও অনাহারে ভুগছে বলে সতর্ক করেছে জাতিসংঘ সমর্থিত একটি প্রতিবেদন।

সন্ত্রাসী ইসরায়েলের হামলায় রাফাহ, খান ইউনিস ও নুসেইরাত শরণার্থী শিবিরে বহুসংখ্যক ফিলিস্তিনি হতাহত হয়েছেন।

গাজার আল-আওদা হাসপাতালে এক স্বাস্থ্য কর্মীকে গুলি করেছে সন্ত্রাসী ইসরায়েলি স্নাইপার।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে, উত্তর গাজায় এখন আর কোনো কর্মক্ষম হাসপাতাল অবশিষ্ট নেই। জ্বালানি, স্টাফ ও সাপ্লাইয়ের অভাবে সবগুলো হাসপাতাল বন্ধ হয়ে গেছে।

ফিলিস্তিনি প্রিজনার ক্লাব বলেছে, গত ৭ই অক্টোবর থেকে দখলীকৃত পশ্চিম তীর থেকে ৪,৬৫৫ জনকে গ্রেফতার করেছে সন্ত্রাসী ইসরায়েল।

ফিলিস্তিনের বিভিন্ন ফ্রন্টে দখলদার জায়োনিস্ট বাহিনীর উপর হামলা চালিয়েছেন ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ যোদ্ধারা। জেনিনে আল-আকসা শহিদী ব্রিগেড দখলদার আগ্রাসী বাহিনীকে প্রতিহত করেছেন। এছাড়া শেখ রিদওয়ান এলাকাতেও দখলদার বাহিনীর সাথে সরাসরি যুদ্ধে লিপ্ত হয়েছেন তারা। এতে দখলদার বাহিনীর মাঝে নিশ্চিতভাবেই হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। খান ইউনিসে একটি ট্যাংকও ধ্বংস করেছেন আল-আকসা শহিদী ব্রিগেডের যোদ্ধারা।

খান ইউনিসে জায়োনিস্ট বাহিনীর তিনটি ট্যাংকে ইয়াসিন-১০৫ দিয়ে হামলা চালিয়েছেন আল-কাসসাম ব্রিগেড। এছাড়াও একদল জায়োনিস্ট সৈন্যদের উপর ইয়াসিন-১০৫ দিয়ে হামলা চালিয়ে শত্রুদের আহত ও নিহত করেছেন মুজাহিদিন।

গাজার আল-জালাআ স্ট্রিট এবং ইয়ারমুক এলাকায় সন্ত্রাসী ইসরায়েলি বাহিনীর উপর হামলা চালিয়েছেন সারায়া আল-কুদস বাহিনী। আরপিজি দিয়ে শত্রুদের সামরিক গাড়িতেও হামলা চালিয়েছেন তারা।

২১শে ডিসেম্বর আবারও বিবৃতি দিয়েছেন আল-কাসসাম ব্র্রিগেডের মুখপাত্র আবু উবাইদা হাফিজাহুল্লাহ। তিনি বলেছেন, জায়োনিস্ট বাহিনী গাজায় স্থল অভিযান শুরু করার পর থেকে এখন পর্যন্ত দখলদার বাহিনীর ৭২০টি সামরিক যান ধ্বংস করেছেন মুজাহিদগণ। এসকল সামরিক যানের মধ্যে আছে, সৈন্যবাহী গাড়ি, বুলডোজার, ট্যাংক, ও সামরিক ট্রাক।

গত সপ্তাহে আল-কাসসাম মুজাহিদিন শত্রুদের উপর ১৫টির বেশি সফল স্নাইপার হামলা চালিয়েছেন। ১২ বারেরও বেশি শত্রুবাহিনীর বিরুদ্ধে সম্মুখ যুদ্ধে লিপ্ত হয়েছেন। এসময় তারা ব্যবহার করেছেন মেশিনগান, মাঝারি ধরনের অস্ত্রশস্ত্র ও হাতবোমা।

আবু উবাইদা আরও বলেছেন, শত্রুরা মূর্খের মতো লড়াই করছে এবং ভুল করছে। মাঝে মাঝে তারা পুরোনো ও কার্যক্রমহীন টানেল আবিষ্কার করে বিজয় উৎযাপন করছে!

সারায়া আল-কুদস একটি জায়োনিস্ট ড্রোন ‘স্কাই রেসিং’- মডেল নং ৫২৮, ভূপাতিত করেছেন।

ইসরায়েলি হামলায় ৩ ইসরায়েলি বন্দী নিহত হওয়ার একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে আল-কাসসাম ব্রিগেড। আল-কাসসাম ব্রিগেড বলেছে, “আমরা তাদের (ইসরায়েলি বন্দীদের) বাঁচাতে চেয়েছিলাম, কিন্তু নেতানিয়াহু তাদের হত্যা করতে জেদ ধরেছে।”

গাজায় সন্ত্রাসী ইসরায়েলের হামলায় এখন পর্যন্ত নিহত ২০,৩০১ জন ফিলিস্তিনি। নিহতদের বেশিরভাগ নারী ও শিশু। এখন পর্যন্ত নিখোঁজ রয়েছেন ৮ হাজারেরও বেশি।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন

পূর্ববর্তী নিবন্ধফিলিস্তিনের জিহাদ || আপডেট – ২০শে ডিসেম্বর, ২০২৩
পরবর্তী নিবন্ধচকলেট দিয়ে শিশুদের ধর্মান্তরকরণের চেষ্টার অভিযোগে মুসলিম শিক্ষককে হেনস্থা!