আফ্রিকার সাহেল অঞ্চলগুলোতে আরো 600 সৈন্য বৃদ্ধি করলো ক্রুসেডার ফ্রান্স!

0
493

পশ্চিম আফ্রিকায় দিন দিন আল-কায়েদার শক্তি অর্জন এবং বরকতময়ী সফল অভিযানের মাধ্যমে একের পর এক এলাকা নিয়ন্ত্রণ করা ক্রুসেডার দেশ সমূহের হৃদপিণ্ডে গিয়ে আঘাত করছে। মুজাহিদদের এই সফলতা চূর্ণবিচূর্ণ করে দিচ্ছে পশ্চিম আফ্রিকাকে ঘিরে ক্রুসেডারদের সকল ষড়যন্ত্র মূলক সাজানো স্বপ্নগুলোকে। তাই কুফ্ফার বাহিনী একজোট হয়ে মুজাহিদদের এই অগ্রযাত্রাকে দমিয়ে দিতে চাচ্ছে, তারা চায় তাদের মুখের ফুঁৎকার দিয়ে সত্যের এই আলোকে নিবিয়ে দিতে।

এরই লক্ষ্যে ফরাসী (ফ্রান্স) সামরিক মন্ত্রনালয় গত রবিবার একটি বিবৃতিতে ঘোষণা করেছে যে আফ্রিকার সাহেল অঞ্চলে ক্রুসেডার ফরাসী বাহিনীর সংখ্যা সাড়ে ৪ হাজার থেকে বেড়ে ৫ হাজার একশ করা হয়েছে । এই সৈন্যরা শুধু সীমান্তেই নিজেদের মানুষরূপী রবদের দায়িত্ব পালনে নিয়োজিত থাকবে।

ইতি পূর্বে ক্রুসেডার ফরাসী রাষ্ট্রপতি “এমানুয়েল ম্যাক্রন” গত জানুয়ারিতে পাঁচটি সাহেল দেশের ধর্মত্যাগী (মুরতাদ) নেতাদের সাথে “বো” শীর্ষ সম্মেলনের সময় অতিরিক্ত 220 সৈন্য নিয়ে একটি নতুন ইউনিট ঘটন করেছিল, যাদের লক্ষ্য ছিল সাহেল অঞ্চলগুলোতে নিয়োজিত ক্রুসেডার ও মুরতাদ সৈন্যদেন মনোবল বৃদ্ধি ও প্রশিক্ষণ দেওয়া। এরপর নতুন করে গত রবিবার এই সংখ্যাটি বাড়িয়ে 600 করার সিদ্ধান্ত নিয় ক্রুসেডার ফ্রান্স।

“এই বাহিনীর মূল অংশটিকে মালি, বুর্কিনা ফাসো এবং নাইজার তিন সাহেলী (সীমান্ত) এলাকায় মোতায়েন করা হবে। এছাড়াও মুরটানিয়া, নাইজেরিয়া এবং চাদের সাহেল এলাকাগুলোতেও স্পেশাল ফোর্স নিযুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছে ক্রুসেডাররা, কারণ এই দেশগুলোর সীমান্ত অঞ্চলগুলোতেও প্রভাব বিস্তারের পাশাপাশি অনেক এলাকা নিজেদের দখলে নিতে শুরু করেছে আল-কায়েদা যোদ্ধারা। দীর্ঘদিন যাবত নাইজেরিয়ায় আল-কায়দার কাজ স্থগিত থাকলেও সাম্প্রতিক সময় সাংগঠনিকভাবে তারা অনেকটা শক্তিশালী হয়ে বড়ধরণের অভিযানে চালাতে শুরু করেছেন।
ক্রুসেডার ফ্রান্সের পক্ষহতে এও বলা হয় যে ” ক্রুসেডারদের এই শক্তিবৃদ্ধি এবং আল-কায়েদার বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করতে এই বাহিনীতে অংশ নিতে একমত হয়েছে পাঁচটি ক্রুসেডার রাষ্ট্রসহ পশ্চিম আফ্রিকার আরো বেশ কিছু দেশ, যাদের সৈন্যরা এই যুদ্ধে মুজাহিদদের বিপক্ষে সরাসরি যুদ্ধের ময়দানে অংশ নেবে।”

একটি সামরিক সূত্র “ফ্রান্স-প্রেসকে” বলেছে যে, ক্রুসেডারদের রিজার্ভ “বারখান” ফোর্সের কয়েক শতাধিক যোদ্ধাও আল-কায়েদার বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনাকারী বাহিনীর শক্তিবৃদ্ধি জন্য অংসগ্রহণ করবে।
যারা এই বাহিনীকে শক্তিশালী করতে সরাসরি এবং প্রতি ছ’মাসের মধ্যে 100 টি করে ভারী ও হালকা সাঁজোয়া যান ও লজিস্টিকাল সরঞ্জামের গাড়ি দিয়ে সহায়তা করবে।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন