আরব আমিরাতে মদপান ও যিনা-ব্যভিচার বৈধ ঘোষণা

1
747
আরব আমিরাতে মদপান ও যিনা-ব্যভিচার বৈধ ঘোষণা

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাতে যিনা-ব্যভিচারের (লিভ টুগেদার) সুযোগ ও মদপানে আইন শিথিল করেছে দেশটির ত্বাগুত শাসক। গত শনিবার দেশটির রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা ডব্লিউএএম এই কথা জানিয়েছে।

দেশটির ইসলামিক পারসোনাল ল’আইন বাতিল করে এই দুটি সুযোগ দেয়া হয়েছে ২১ বছরের বেশি বয়সী মানুষের জন্য।

খবরে দাবি করা হয়, দেশটির আইনে এসব পরিবর্তন করা হয়েছে জীবনমান উন্নত করার উদ্দেশ্যে ও দেশটিতে আগত বিদেশিদের জন্য।

সেপ্টেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতায় অবৈধ রাষ্ট্র ইসরায়েলের সাথে আরব আমিরাতের সম্পর্ক স্বাভাবিক করা হয়। এরপরই ইসরায়েলের কাছ থেকে বিনিয়োগ ও পর্যটক আকর্ষণের চেষ্টা করছেে এ দেশটি।

সরকার সিদ্ধান্ত নেয়ার পর দ্রুত এ আইন কার্যকর হচ্ছে। এখন থেকে মাদবদ্রব্য ও মদপান, বিক্রি ও মালিকানায় রাখার কারণে কোনো সমস্যায় পড়তে হবে না।

এর আগে আমিরাতের আইনে লাইসেন্স ছাড়া মদ ও মাদক রাখা এবং বিক্রির দায়ে ধরা পড়লে শাস্তির মুখে পড়ার বিধান ছিল। এ জন্য অন্তত ৮০টি বেত্রাঘাতের বিধান ছিল। যদিও, দালাল শাসকদের সময়গুলোতে এ ধরনের শাস্তি বাস্তবায়নের ঘটনা দেখা গেছে খুবই কম।

এ ছাড়া বিবাহবহির্ভূত শারীরিক সম্পর্ক করা, একসঙ্গে বসবাসের ক্ষেত্রেও নারী-পুরুষকে কয়েক মাসের জেল দেয়ার বিধান ছিল দেশটিতে।

আরব আমিরাতে বসবাসকারী বিদেশিদের ক্ষেত্রে এখন থেকে বিবাহবিচ্ছেদ ও উত্তরাধীকারের মতো গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুগুলোয় স্থানীয় আইনের পরিবর্তে বাদী-বিবাদীদের নিজ দেশের আইন অনুসরণ করা হবে বলেও জানানো হয়।

বরাবরের ন্যায় এবারও ইসলাম বিরুধী এই শয়তানি আইনের পক্ষে সাফাই গেয়েছে পশ্চিমা কিছু তথাকথিত মানবাধিকার সংস্থা।

সূত্র : ডেইলি মেইল ও মেট্রো ডটকম।

১টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন