চতুর্থতম দেশ হিসাবে জেরুজালেমে ইসরাইলি দূতাবাস খুলছে হন্ডুরাস

1
698
চতুর্থতম দেশ হিসাবে জেরুজালেমে ইসরাইলি দূতাবাস খুলছে হন্ডুরাস

মধ্য আমেরিকার দেশ হন্ডুরাস চতুর্থতম দেশ হিসাবে অবরুদ্ধ জেরুজালেম নগরীতে ইসরাইলি দূতাবাস খুলেছে।

গত ২৪ জুন বৃহস্পতিবার হন্ডুরাসের প্রেসিডেন্ট জুয়ান অরল্যান্ডো হার্নান্দেজ ফিতা কেটে পবিত্র জেরুজালেমে তার দেশের ইসরাইলি দূতাবাসের উদ্ভোধন করে।

দখলদার ইসরাইলের নতুন প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেটের উপস্থিতিতে হন্ডুরাসের প্রেসিডেন্ট জুয়ান হন্ডুরাসের ইসরাইলি দূতাবাস ফিলিস্তিনের রাজধানী জেরুজালেমে স্থানান্তরের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করে। এর আগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, গুয়েতেমালা ও কসভো তাদের নিজ নিজ দেশের ইসরাইলি দূতাবাস পবিত্র নগরী জেরুজালেমে স্থানান্তরিত করেছিল।

হন্ডুরাসের প্রেসিডেন্ট জুয়ান তার দেশের ইসরাইলি দূতাবাস জেরুজালেম নগরীতে স্থানান্তরকরণ শেষে এক টুইট বার্তায় বলে,”আমরা আশা করি, আমাদের দুই দেশের মধ্যকার দৃঢ় সম্পর্ক অব্যাহত থাকবে।”

ফিলিস্তিনের রাজধানী জেরুজালেমে হন্ডুরাসের ইসরাইলি দূতাবাস উদ্ভোধনের পূর্বে ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী নাফতালি হন্ডুরাস প্রধানমন্ত্রী জুয়ানকে সংক্ষেপে বলেন,”মিঃ প্রেসিডেন্ট। আপনি ইসরাইলের একজন ঘনিষ্ঠজন।”

“ইহুদিদের অনেক স্মৃতি আছে; আর আপনি ইসরাইলি রাষ্ট্রের স্বীকৃতি প্রদান ও সাহসী পদক্ষেপের জন্য ইতিহাসের পাতায় স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।”

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসে দখলদার ইসরাইল কর্তৃক জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা করার পর, গত ২০১৮ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইসরাইলের আমেরিকান দূতাবাস তেলআবিব থেকে পবিত্র নগরী জেরুজালেমে স্থানান্তরিত করেছিল।

গত ২০১৯ সালের আগষ্ট মাসে হন্ডুরাস ফিলিস্তিনের রাজধানী জেরুজালেমকে ইসরাইলের নতুন রাজধানী হিসাবে স্বীকৃতি দিয়েছিল।

মধ্য আমেরিকার আরেক দেশ গুয়েতেমালা ২০১৮ সালেই জেরুজালেমে ইসরাইলি দূতাবাস খুলেছিল। পরে ইউরোপের সদ্য স্বাধীন হওয়া দেশ কসভো ২০২১ সালে তৃতীয় দেশ হিসেবে জেরুজালেমে কসভোর ইসরাইলি দূতাবাস খুলে।

আরো উল্লেখ্য, ইউরোপীয় ইউনিয়ন তার সদস্যভুক্ত দেশসমূহকে বরাবরই জেরুজালেমে ইসরাইলি দূতাবাস খুলতে নিষেধ করে আসছে; কারণ আন্তর্জাতিক আইন অনুসারে ফিলিস্তিনের রাজধানী জেরুজালেম একটি বিরোধপূর্ণ শহর, যেখানে পূর্ব জেরুজালেম দাপ্তরিকভাবেই সন্ত্রাসী ইসরাইল জোড়পূর্বক দখল করে রেখেছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন জানায়,”অবরুদ্ধ জেরুজালেমে ইসরাইলি দূতাবাস স্থানান্তরিত করার ব্যপারে ইউরোপীয় ইউনিয়নের অবস্থান সুস্পষ্ট। ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশসমূহের দূতাবাস এমনকি ইউরোপীয় ইউনিয়ন প্রতিনিধিদের ইসরাইলি অফিস তেলআবিবেই অবস্থিত।”

১টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন