মুজাহিদদের প্রতি ইমারতে ইসলামিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর সতর্কবার্তা

0
1076
মুজাহিদদের প্রতি ইমারতে ইসলামিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর সতর্কবার্তা

অতি সম্প্রতি ইমারতে ইসলামিয়া আফগানিস্তানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মুহতারাম মোল্লা ইয়াকুব ওমারি (হাফিযাহুল্লাহ) ইমারতে ইসলামিয়ার সেনাবাহিনীতে থাকা দায়িত্বের প্র‍তি অবহেলা প্রদর্শনকারী ও অতি আবেগপ্রবণ সদস্যদের উদ্দেশ্য করে গুরুত্বপূর্ণ একটি অডিও বার্তা প্রেরণ করেছেন।

উক্ত বার্তায় তিনি বেশ কয়েকটি বিষয়ে সুস্পষ্টভাবে মুজাহিদদের হুঁশিয়ারি প্রদান করেন এবং নির্দেশ অমান্য করলে ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করলে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেবার কথাও ঘোষণা করেন।

বার্তাটি আল-ফিরদাউস এর অনুবাদক টিমের হাতে এসে পৌঁছেছে এবং বাংলা ভাষাভাষী ভাই-বোনদের জন্য আমরা এর অনুবাদ পেশ করছি:

১. আমরা খবর পাচ্ছি যে কোনো কোনো কমান্ডার তাদের সাথে এমন কতক সৈন্য ও অফিসারদের নিয়োগ দিচ্ছেন, যারা দূর্নীতির সাথে যুক্ত। আমি আপনাদের সাবধান করছি: দূর্নীতির সাথে যুক্ত এমন সবাইকে দল থেকে বহিষ্কার করুন, অন্যথায় আমি আপনাদের পুরো স্কোয়াডকে বহিষ্কার করে দিব।

২. শিশুসুলভ আচরণ পরিহার করতে হবে। সরকারি গাড়ি ও সাঁজোয়াযান দিয়ে দেশজুড়ে আনন্দভ্রমণ করার কোনো অনুমতি কাউকে দেয়া হয়নি। অর্থহীনভাবে ভিডিও ফুটেজ ধারণ করা পরিহার করতে হবে।

৩. কোনো মুজাহিদের যদি কারো সাথে ব্যক্তিগত শত্রুতা বা মনোমালিন্য থাকে, কোর্টে গিয়ে তার ফয়সালা করুন। আইনকে নিজের হাতে তুলে নিলে আপনাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই কঠোর পদক্ষেপ নেয়া হবে।

৪. আপনারা সবাই ইমারতে ইসলামকে প্রতিনিধিত্ব করছেন। অতএব যথাযথভাবে ইউনিফর্ম ও পোশাক পরিধান করুন এবং কথার উপর লাগাম রাখুন। একজন প্রকৃত মুজাহিদের মত আচরণ করুন।

৫. আপনার কাজেকর্মে ইমারতে ইসলামিয়ার বদনাম যেন না হয়! ইমারতে ইসলামিয়া গড়ে উঠেছে শুহাদাদের রক্ত দিয়ে, তাঁদের কুরবানিকে কোনোকিছুর বিনিময়েই বিক্রি হতে দিবেন না।

৬. আমার কাছে সেনা সদস্যদের ব্যাপারে অনেকগুলো নালিশ এসেছে। তারা নাকি কতিপয় লোকের কারণে পুরো ইমারতে ইসলামিয়াকে দোষারোপ করছে এবং তাদের কমান্ডারদেরকে পর্যন্ত অমান্য করছে।

ধৈর্য্য ধরুন! আপনারা কি আপনাদের আমিরদের আনুগত্য করতে গিয়ে নিজের সর্বস্ব কুরবান করার ওয়াদা করেননি? আর আপনাদের কমান্ডাররা কি আপনাদের বিজয়ের পথে পরিচালিত করেননি?

নবগঠিত ইমারতে ইসলামিয়ার সেনাদলে শামিল হয়েছেন বহুসংখ্যক নতুন মুজাহিদ। এদের অনেকেই আবার প্রাক্তন মুরতাদ কাবুল সরকারের সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য ছিল, অতএব ছোটোখাটো মনোমালিন্য হওয়া স্বাভাবিক ব্যাপার। মোল্লা ইয়াকুব ওমারি (হাফিযাহুল্লাহ) এর জ্ঞানগর্ভপূর্ণ এই পদক্ষেপ ইনশাআল্লাহ নবীন মুজাহিদদের ছোটখাটো ভুল সংশোধন দায়িত্ব নিয়ে কাজ করতে সাহায্য করবে।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন