বুর্কিনা ফাসোতে সেনাবাহিনীর উপর আল-কায়েদার হামলা: হতাহত ২১ এরও বেশি

0
531
বুর্কিনা ফাসোতে সেনাবাহিনীর উপর আল-কায়েদার হামলা: হতাহত ২১ এরও বেশি

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ বুর্কিনা ফাসোর উত্তরাঞ্চলে ক্রুসেডার ফ্রান্সের গোলাম সেনা বাহিনীর উপর আক্রমণ চালিয়েছেন “জেএনআইএম” এর মুজাহিদগণ। এতে দেশটির ১৪ সেনা সদস্য নিহত এবং আরও ৭ এরও বেশি সৈন্য আহত হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বুর্কিনা ফাসোর উত্তরাঞ্চলীয় বার্সালোগো এলাকার কাছে বরকতময় এই হামলাটি চালানো হয়।

সূত্রটি আরও জানায়, বার্সালোগো এলাকায় দেশটির সেনাবাহিনীর একটি সামরিক ঘাঁটি লক্ষ্য করে হামলাটি করা হয়েছিল, হামলার ঘটনাটি গত ৪ অক্টোবর সকালে ঘটেছিল।

সেনাবাহিনীর দেওয়া বিবৃতি অনুসারে, মোটরসাইকেল আরোহী একদল সশস্ত্র মুজাহিদ প্রথমে সামরিক ঘাঁটিতে প্রবেশ করে এবং সেনা সদস্যরা কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই তাঁরা তীব্র গুলি চালাতে শুরু করেন। এতে ১৪ সৈন্য নিহত এবং আরও ৭ সৈন্য আহত হয়েছে।

অভিযানে পরিচালনাকারী মুজাহিদগণ আক্রমণ শেষে ঘাঁটি থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদও গনিমত পেয়েছেন বলে জানা গেছে।

সূত্রটি আরও যুক্ত করে যে, আল-কায়েদার পশ্চিম আফ্রিকা শাখা জামায়াত নুসরাতুল ইসলাম ওয়াল মুসলিমিনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট দলগুলো এই হামলাটি চালিয়েছে। ২০১৫ সাল থেকে এই এলাকায় সবচাইতে সক্রিয় অবস্থানে রয়েছে JNIM এর আঞ্চলিক শাখা আনসারুল ইসলাম।

উল্লেখ্য যে, দলটি এই অঞ্চলে দিন দিন তাদের অগ্রযাত্রার গতি বাড়াচ্ছে, ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে ওয়াগাদুগু হামলার মাধ্যমে প্রথমে আলোচনায় আসে আল-কায়েদার এই আঞ্চলিক শাখাটি। এরপর ২০১৭ সালে সরাসরি আল-কায়েদার সাথে যুক্ত হওয়ার ঘোষণা করেন তারা। সেই থেকে তারা বুর্কিনা ফাসোতে বীরত্বের সাথে নিজেদের কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছেন। আর বর্তমানে তাঁরা সীমান্তবর্তী পূর্বাঞ্চলীয় দেশগুলোতেও ছড়িয়ে পড়েছেন। তাদের কার্যক্রম এখন টোগো, বেনিন এবং নাইজারেও বিস্তৃত। আলহামদুলিল্লাহ্।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন