ধর্মান্তকরণ বিরোধী মুসলিম বিদ্বেষী বিল পাশের পর ভারতে হিন্দুত্ববাদীদের কার্যক্রমে ব্যাপক তোড়জোর

উসামা মাহমুদ

0
745
ধর্মান্তকরণ বিরোধী মুসলি বিদ্বেষী বিল পাশের ভারতের হিন্দুত্ববাদীদের কার্যক্রমে ব্যাপক  তোড়জোর

কথিত বৃহৎ গণতন্ত্রবাদী ভারত যুগ যুগ ধরে হিন্দু মুসলিমদের সমান অধিকারের কথা বলে মুসলিমদের বোকা বানিয়ে আসছে। এখন তাদের হিন্দুত্ববাদী এজেন্ডা সামনে আনতে শুধু করেছে। তারা প্রকাশ্য ঘোষণা দিচ্ছে ভারত হবে হিন্দুত্ববাদী রাষ্ট্র। যেখানে শুধু হিন্দুরাই থাকবে। আর বর্তমানে বসবাসরত মুসলিমদের কৌশলে দুর্বল বানিয়ে গণহত্যা চালানো হবে।

সেই উদ্দেশ্যেকেই বাস্তবায়নের লক্ষ্যে হিন্দুত্ববাদী মুখ্যমন্ত্রী বাসভরাজ বোমাই তার দলের হিন্দুত্ব এজেন্ডাকে এগিয়ে নিচ্ছে। সে নতুন বিল পাশ করেছে যদি কোন হিন্দু ইসলামের সত্যতা বুঝে মুসলিম হয় তার বিরুদ্ধে এবং যাদের মাধ্যমে মুসলিম হবে সকলকে কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে। অন্যদিকে, কোন মুসলিমকে ভুল বুঝিয়ে, ভয় দেখিয়ে কিংবা জোরপূর্বক হিন্দু বানানোকে তারা ঘরওয়াপেসি নাম দিয়েছে। অথচ, তাদের কথিত সংবিধানেও প্রাপ্ত বয়স্ক ব্যক্তির যেকোন ধর্ম পালন কিংবা গ্রহন করার অধিকার রয়েছে। এখানেই তাদের ভন্ডামী ধরা পড়ে যায়। এ বিল পাশের পর আরো একধাপ এগিয়ে মুসলিমদের মসজিদের উপর হিন্দুদের মন্দিরকে অগ্রাধিকার দিয়েছে। ফলে উগ্র হিন্দুদের জন্য বাবরী মসজিদের মত আরো অনেক মসজিদ ভেঙ্গে মন্দির বানানোর রাস্তা সহজ হয়ে গেছে। এছাড়া, রাজ্যের বাজেটে গরুর সুরক্ষা এবং হিন্দু তীর্থযাত্রীদের নগদ সহায়তা প্রদান করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

গত (০৪/০৩/২২) শুক্রবার তার প্রথম বাজেটে, বোমাই হিন্দু মন্দিরগুলিকে সরকারি নিয়ন্ত্রণ থেকে মুক্ত করার, নতুন গোশালা খোলার, কপ্পাল জেলায় অঞ্জনাদ্রি বেত্তার বিকাশ এবং কাশী যাত্রায় তীর্থযাত্রীদের জন্য নগদ সহায়তা প্রদানের প্রস্তাব করে।

হিন্দুত্ববাদী বোমাই গোশালাগুলিতে গরু দত্তক নেওয়ার জন্য একটি প্রকল্প ঘোষণা করার পাশাপাশি ৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে ৬৯টি নতুন গোশালা নির্মাণের ঘোষণা করে হিন্দুত্ববাদী গোষ্ঠীগুলির মন জয় করে।

উল্লেখ্য, ভারতে হিন্দুরা মুসলিমদের জন্য গরুর মাংস খাওয়া, বিক্রি করা, বহন করা নিষিদ্ধ করেছে। এ কারণে অনেক মুসলিমকে উগ্র হিন্দুরা নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করেছে। এর কুফল হিসেবে ভারতে বেওয়ারিশ গরুর সংখ্যা বেড়ে বিপদের কারণ হয়েছে। রাস্তায় দলে দলে ঘোরাফেরার ফলে গাড়ি দুর্ঘটনা,পারাপারে সমস্যা,যানজট তৈরী হয়।কৃষকদের আবাদি ফসলি জমি নষ্ট হয়। অনেক সময় হিন্দু কৃষকরাই অতিষ্ঠ হয়ে খাদে ফেলে গরু হত্যা করে।
তাই গরু সংরক্ষণে ব্যক্তিগত অংশগ্রহণকে উত্সাহিত করার জন্য, রাজ্য বার্ষিক ১১,০০০ টাকা প্রদান করে গোশালাগুলি থেকে গরু দত্তক নেওয়ার জন্য ‘পুণ্যকোটি দত্তু যোজনা’ চালু করার পরিকল্পনা করেছে।

এদিকে, বোমাই ১০০ কোটি রুপি ব্যয়ে কোপ্পাল জেলার অঞ্জনাদ্রি বেট্টা গড়ে তোলার পরিকল্পনার রূপরেখাও দিয়েছে, যা তাদের কল্পিত ভগবান হনুমানের জন্মস্থান বলে মনে করে হিন্দুরা।
অযোধ্যার বাবরি মসজিদ শহিদ করে হিন্দুত্ববাদী শকুনদের নজর এখন কাশীতে। তাই সেখানে হিন্দুদের আগমন বাড়াতে ৩০,০০০ তীর্থযাত্রীদের প্রত্যেককে ৫,০০০ টাকা নগদ সহায়তা প্রদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। পক্ষান্তরে মুসলিমদের ঈদে অর্থ দেওয়া দূরের কথা নানা বিধি নিষেধ দিয়ে কোনঠাসা করে রাখা হয়।

“যখন বোমাই মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব গ্রহণ করেছিল, তখন তাঁর দলের কপালে ভাজ পড়েছিল। যে, সে হিন্দুত্ববাদী এজেন্ডা নিয়ে কাজ করবে কি না! কারণ সে আরএসএস-এর সাথে তার কর্মজীবন শুরু করেনি। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার মাত্র ছয় মাসের মধ্যে সে হিন্দুত্বের প্রতি দায়বদ্ধতা দেখিয়ে সবাইকে ভুল প্রমাণ করেছে। সে অন্যদের চেয়েও বেশি মুসলিম বিদ্বেষ প্রকাশ করছে।
মুসলিমরা যতই মনে করুক কথিত গণতন্ত্র তাদের অধিকার রক্ষা করবে, ততই তারা ধোঁকা খাবে। কারণ হিন্দুত্ববাদীরা শুধু তাদের এজেন্ডা বাস্তবায়নের জন্যই কাজ করবে।
তাই উলামায়ে কেরাম মুসলিমদের গণতন্ত্রের ধোঁকায় না পড়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে হিন্দুত্ববাদী আগ্রাসনে মোকাবেলার আহ্ববান জানিয়েছেন।

তথ্যসূত্র:
—–
1। After anti-conversion bill, Karnataka CM Basavaraj Bommai continues strong Hindutva push
https://tinyurl.com/2p83vj59

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন