ফটো-রিপোর্ট || ফিলিস্তিনের সমর্থনে দক্ষিণ সোমালিয়ার লোয়ার শাবেলি রাজ্যে বিক্ষোভ

- নজরুল ইসলাম

0
723

দক্ষিণ সোমালিয়ার আশ-শাবাব নিয়ন্ত্রিত ইসলামিক অঞ্চল লোয়ার শাবেলির বাসিন্দারা গাজায় ইসরায়েলি দখলদারিত্ব ও আগ্রাসনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছেন সর্বস্তরের মুসলিমরা। সেই সাথে ইসরায়েলি আগ্রাসনে কথিত আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সমর্থন প্রদানের নিন্দা জানিয়েছেন বিক্ষোভে অংশগ্রহণকারীরা। ফিলিস্তিন এবং ফিলিস্তিনি জনগণের সাথে তাদের পূর্ণ একাত্মতা ঘোষণা করেন উপস্থিত জনতা।

ইসলামি অঞ্চলের বাসিন্দারা ইসরায়েলি বাহিনীকে ধরে নিয়ে যাওয়া ফিলিস্তিনি প্রতিরোধের ছবি এবং ইহুদি সৈন্যদের মৃতদেহ প্রদর্শন করা ব্যানার বহন করেন, যেখানে লেখা ছিল “খায়বার, খায়বার, হে ইহুদিরা, মুহাম্মদের বাহিনী ফিরে এসেছে।”
সাধারণ মুসলিমদের বহন করা ব্যানারগুলিতে আরও লেখা ছিল, “গাজা: একটি শহরের গল্প, যা গর্বের মূল্য পরিশোধ করছে”, এবং “আমরা আসছি, হে আল-আকসা।”
“প্রিয় প্যালেস্টাইন, ভেবো না ‘আমরা তোমাদের ভুলে গেছি।’ না, তোমরা আমাদের হৃদয় দরজায় আছ; আমরা দিগন্তে বিজয়ের স্পষ্ট রেখা দেখছি।”

পুরুষ, মহিলা এবং শিশুরা “আল্লাহু আকবর” ধ্বনিতে চারিদিক মাতিয়ে তুলে ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ্’র ব্যানার নিয়ে বেরিয়েছিল; কারণ সোমালিয়ার মুসলমানদের মধ্যে ফিলিস্তিন একটি মহান স্থান দখল করে আছে।

অপারেশন আল-আকসা ফ্লাডের ঘটনা এবং এর প্রতিক্রিয়া নিয়ে ইসলামিক অঞ্চলসমূহের স্থানীয় রেডিওতে ব্যাপক কভারেজ পায়। সেই সাথে কাভারেজ পায় ফিলিস্তিনি জনগণের সমর্থনে আশ-শাবাব নেতৃত্বের প্রদত্ত বিবৃতি।

হারাকাতুশ শাবাব আল-মুজাহিদিনের জেনারেল কমান্ড “আল-আকসা ফ্লাড” যুদ্ধের প্রশংসা করে একটি বিবৃতি জারি করেছেন এবং মুসলিম জাতির পক্ষ থেকে ফিলিস্তিনে জিহাদের সমর্থনের সুপারিশ করেছেন। বিবৃতিতে বলা হয়েছে: ” পূর্ব আফ্রিকার আপনাদের মুজাহিদিন ভাইরা আপনাদের এই মহাকাব্যিক অভিযানকে পূর্ণ সমর্থন করে। ফিলিস্তিনের শোকাহত ভূমি, আমরা আপনাকে আশ্বাস দিচ্ছি যে, আপনাদের মুক্তির জন্য আত্মত্যাগে আমরা আমরা পিছিয়ে পড়তাম না। আমরা যদি আপনার কাছে আসার একটি পথ খুঁজে পেতাম, তবে আমরা আপনাদের সাহায্যের জন্য আসতে দেরি করতাম না। আপনারা সেখানে প্যালেস্টাইনের জন্য সংগ্রাম করছেন, আর আমরা পূর্ব আফ্রিকার ভূমিতে সংগ্রাম করছি। কিন্তু আমাদের চোখ জেরুজালেমকে দেখছে, আর আমাদের হৃদয় আপনার সাথে রয়েছে। আমাদের শত্রু এবং আপনাদের শত্রু একই। তারা ইসলাম ও মুসলিম জাতির বিরুদ্ধে একত্রিত হয়েছে। পৃথিবীর পূর্ব, পশ্চিম, দক্ষিণ ও উত্তরে মুসলিম জনগণের বিরুদ্ধে জুলুম ও আগ্রাসনের জন্য তারা বাহিনী তৈরি করেছে। আমরা এখনও জিহাদে আছি এবং তাদের রক্ষা করছি এবং আমাদের মিলন হবে আল-আকসার প্রাঙ্গণে, উল্লাস ও উচ্ছ্বসিত অবস্থায়। ইনশাআল্লাহ্।

সোমালিয়ার মুসলমানরা বিশ্বাস করেন যে, ইহুদি দখলদারিত্ব থেকে ফিলিস্তিনের সম্পূর্ণ মুক্তি প্রত্যেক মুসলমানের জন্য একটি ফরজ কর্তব্য।
এদিকে, কেনিয়ার সংবাদ মাধ্যম ফিলিস্তিনের প্রতি সোমালি জনগণের সম্প্রীতির দিকটির উপর আলোকপাত করেছে। কেনিয়ার সরকারও ইতিমধ্যে সতর্ক করেছে যে, আশ-শাবাব মুজাহিদিন ফিলিস্তিনের মুসলমানদের সাথে সংহতি প্রকাশ করতে কেনিয়ায় হামলা চালাতে পারে, কারণ সোমালিয়ার সাধারণ মুসলিম ও মুজাহিদরা ফিলিস্তিনকে সমর্থন করার জন্য পূর্ণ অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছে।

ফিলিস্তিনের সমর্থনে শাবাব নিয়ন্ত্রিত লোয়ার শাবেলি রাজ্যে মুসলিমদের বিক্ষোভ সমাবেশের কিছু দৃশ্য দেখুন –

সকল ছবি একসাথে – https://files.fm/u/atymffa24s

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন

3 + 6 =