বিশ্বমানবতার জন্য এক লজ্জাজনক অধ্যায়

0
774

পৃথিবী যখন রাতের অন্ধকারে ঢাকা পড়ে ক্লান্তশ্রান্ত মানুষজন তখন তাদের বাড়িতে শান্তিতে ঘুমিয়ে থাকে। অপর দিকে সিরিয়াতে রাতের অন্ধকার হাজির হয় অবর্ণনীয় নির্মমতা নিয়ে ।রাতের অন্ধকারে হিংস্র হায়েনার মত ঝাঁপিয়ে পড়ে ক্রুসেডার রাশিয়া-ইরান জোট ও কুখ্যাত নুসাইরি শিয়া বাশার আল আসাদ বাহিনী।মুহুর্মুহু বিমান ও রকেট হামলায় ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয় মুসলিম জনপদ।প্রতিদিন এসকল বর্বর হামলায় মারা যাচ্ছেন শত শত নিরাপরাধ মানুষ। জীবন রক্ষার জন্য বাড়িঘর ছেড়ে পালাতে বাধ্য হচ্ছেন বাসিন্দারা । এরূপ হামলায় অসংখ্য দুঃখজনক ঘটনার মধ্যে দুটি ঘটনা যা খুবই হৃদয়বিদারক।

দুই মাস বয়সী এই শিশুটির নাম মীরা। ভয়াবহ ও নির্মম বিমান হামলায় ভাগ্যক্রমে সে বেঁচে রয়েছে,তবে তার দুঃখের যেন শেষ নেই। কারন পৃথিবীতে তার আর কোন নিকটজন বেঁচে নেই।কারন,গতকাল ৬মার্চ ইদলিবের মারাত মাসরিনে কুখ্যাত সন্ত্রাসী রাশিয়া-ইরান জোটের বিমান হামলায় নিহত হয়েছে তার পরিচারের সবাই।তাকে এখন এই বিধ্বস্ত হিমশীতল সিরিয়ায় একাই পারি দিতে হবে, জীবনের বাকি পথ।কেইবা জানে, আবার না অন্য কোন হামলায় সেও রওনা দিবে তার আপনজনদের কাছে !

একইভাবে গতকালের এই মর্মান্তিক হিংস্র হামলায় আরেকটি দুঃখজনক ঘটনা ঘটে। ৩মাস বয়সী আদিয়ান।এই ছোট্ট বয়সেই ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলায় শিকার হয় সে ও তার পরিবার। এ হামলায় তার আপন ৪ ভাইসহ তার মা নিহত হন।কি দোষ ছিল তাদের? কেন তারা এত ছোট্ট বয়সেই সন্ত্রাসী হামলার শিকার হচ্ছে?তাদের একমাত্র দোষ তারা নবী ও রাসুলদের পবিত্র ভূমি “শামের”মুসলমান।

উল্লেখ্য যে, গতকাল ৬মার্চ ইদলিব প্রদেশের মারাত মাসরিনে ক্রুসেডার জোটের বিমান হামলায় ঘুমন্ত অবস্থায় ৭জন নারী,২জন শিশুসহ আরও১৬জন নিহত হয়।আহত হন আরো ২০জন বলে খবর প্রকাশ করেছেন হোয়াইট হেলমেট সিভিল ডিফেন্স, সিরিয়া।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন