ফিলিস্তিনের জিহাদ || আপডেট – ২৪ ডিসেম্বর, ২০২৩

- সাইফুল ইসলাম

0
349
সুবিধামত ফন্ট ছোট বড় করুনঃ

সন্ত্রাসী ইসরায়েল এবার আল-মাগাজি শরণার্থী শিবিরে ভয়ানক হামলা চালিয়েছে। ইসরায়েলের বর্বরোচিত এই হামলায় প্রাথমিকভাবে অন্তত ৭০ জন ফিলিস্তিনি নিহত হওয়ার কথা জানিয়েছেন গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

লোহিত সাগরে হুথিদের আক্রমণ থেকে ইসরায়েলি জাহাজকে বাঁচাতে যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে একটি জোট গঠন করা হয়েছিল। স্পেন ঘোষণা দিয়েছে যে, তারা এই জোটে যোগ দেবে না।

গাজার সরকারি মিডিয়া কার্যালয় জানিয়েছে, এখন পর্যন্ত শতাধিক সাংবাদিককে হত্যা করেছে দখলদার ইসরায়েল। নিহত সাংবাদিকের সংখ্যা এখন ১০৩ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় সন্ত্রাসী ইসরায়েল অন্তত ১৬৬ ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে, আহত করেছে আরও ৩৮৪ জনকে।

আল-জাজিরার তথ্যমতে, গাজা ও পশ্চিম তীরে এখন পর্যন্ত নিহত হয়েছেন ২০৭২৭ জন ফিলিস্তিনি। নিহতদের অধিকাংশ নারী ও শিশু।

সন্ত্রাসী ইসরায়েল উত্তর গাজার জাবালিয়া এলাকার একটি টানেল থেকে ৫ ইসরায়েলি বন্দীর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে বলে জানিয়েছে জায়োনিস্ট বাহিনী।

ইসরায়েলি বাহিনীর মুখপাত্র বলেছে, ইসরায়েল `জটিল’ যুদ্ধের মুখোমুখি হয়েছে! সে বলেছে, হামাসকে নির্মূল করতে হলে নিজেদের সেনাও হারাতে হবে!

আল-কাসসাম ব্রিগেডের মুখপাত্র আবু উবাইদাহ বলেছেন, গত ৪ দিনে অন্তত ৪৮ জায়োনিস্ট সেনাকে হত্যা করেছেন আল-কাসসাম ব্রিগেডের মুজাহিদগণ।

২৪শে ডিসেম্বর আল-কাসসাম ব্রিগেডের চালানো কয়েকটি আক্রমণ:

জাবালিয়া শরণার্থী শিবিরের আল-কাসাইব এলাকায় ইয়াসিন-১০৫ দিয়ে ইসরায়েলি মারকাভা ট্যাংকে হামলা।
উত্তর গাজার জাবালিয়া আল বালাদ এলাকার উপকণ্ঠে সন্ত্রাসী ইসরায়েলের ২টি মারকাভা ট্যাংকে ইয়াসিন-১০৫ দিয়ে হামলা।
মধ্য গাজার জুহর আল-দিক এলাকায় প্রবেশ করা একদল জায়োনিস্ট সৈন্যকে অ্যান্টি পার্সনেল বিস্ফোরক ব্যবহার করে হামলা চালিয়েছেন মুজাহিদগণ। এতে দখলদার বাহিনীর ৬ সৈন্য নিহত হয়েছে এবং বাকিরা আহত হয়েছে।
জাবালিয়া শরণার্থী শিবিরের আল-কাসাইব এলাকায় ৩ জায়োনিস্ট সৈন্যকে স্নাইপার হামলার শিকার বানানো। এদের মধ্যে একজন ছিল মেজর।
মধ্য গাজার জুহর আল-দিকে একটি ভবনের ভেতরে ছিল ১০ সদস্যের জায়োনিস্ট স্পেশাল বাহিনী। মুজাহিদগণ তাদের উপর টিবিজি গোলা ব্যবহার করে হামলা চালিয়েছেন। এতে শত্রুবাহিনীর মাঝে হতাহতের ঘটনা ঘটেছে।

২৪শে ডিসেম্বর ইসরায়েলি বাহিনীর উপর কুদস ব্রিগেডের চালানো কয়েকটি আক্রমণ:

রকেট ও মর্টার শেল দিয়ে খান ইউনিসে শত্রুশিবিরে হামলা।
জাবালিয়া আল-বালাদ এলাকায় আল-নুজহা স্ট্রিটে তানডেম গোলা ব্যবহার করে মারকাভা ট্যাংকে হামলা।
আল-জায়তুন বসতিতে দখলদার বাহিনীর একদল সেনার উপর হ্যাভি-ক্যালিবার মর্টার শেল ব্যবহার করে হামলা।
সুফা এলাকায় শত্রুসেনাদের উপর মর্টার শেল দিয়ে হামলা।
গাজা শহরের পূর্বে আল-জায়তুন ও শুজাইয়া এলাকায় দুটি আরপিজি শেল এবং একটি গেরিলা অ্যাকশন ডিভাইস ব্যবহার করে ৩টি জায়োনিস্ট সামরিক যানে হামলা।
খান ইউনিসের ইসলামি কমপ্লেক্সের আশপাশে থাকা দখলদার বাহিনীর ঘাঁটিতে হ্যাভি-ক্যালিবার মর্টার শেল দিয়ে হামলা।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন

পূর্ববর্তী নিবন্ধশুক্রবার’নামাজের’ বিরতি বাতিল করল ভারতের রাজ্যসভা
পরবর্তী নিবন্ধসালং মহাসড়ক পুন:নির্মান, ইমারতে ইসলামিয়ার সমৃদ্ধির অঙ্গীকার