ভাঙ্গা সেতু নিয়ে ২ বছরেও সিদ্ধান্ত হয়নি, ভোগান্তিতে তিন উপজেলার মানুষ

0
73

সাতক্ষীরা জেলার আশাশুনি উপজেলায় মরিচ্চাপ নদী খননের সময় ২০২২ সালের জানুয়ারিতে ভেঙে পড়ে বুধহাটা ইউনিয়নের বাঁকড়া সেতুটি। কিন্তু গত দুই বছর পার হলেও সেটি অপসারণ বা সেখানে নতুন কোনো সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। এতে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন তিন উপজেলার লক্ষাধিক মানুষ।

বাঁকড়া সেতুটি দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর নির্মাণ করলেও, ওই সড়কটি এখন স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) আওতাধীন। সরকারি এ দুটি সংস্থার সমন্বয়হীনতার কারণে সেতুটি অপসারণ বা চলাচলের বিকল্প ব্যবস্থা গ্রহণ করা যাচ্ছে না বলে মনে করেন স্থানীয় বাসিন্দারা। দুটি সংস্থাই একে অন্যকে দুষছে।

খোঁজ নিয়ে সংবাদমাধ্যম যুগান্তর জানিয়েছে, উপজেলার বুধহাটা ইউনিয়নের বাঁকড়া এলাকায় মরিচ্চাপ নদীর ওপর সেতুটি নির্মাণ করা হয় ২০১৬-১৭ অর্থবছরে। প্রায় ৫৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ৬০ ফুট দৈর্ঘ্যের সেতুটি নির্মাণ করে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর। এরপর মরিচ্চাপ নদী খননের সময় ২০২২ সালের জানুয়ারিতে হঠাৎ করে সেতুটি ভেঙে পড়ে।

এ ব্যাপারে এলজিইডি সাতক্ষীরার নির্বাহী প্রকৌশলী মো. কামরুজ্জামান বলে, সেতুটি দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর নির্মাণ করেছে। সেটি ভেঙে পড়ার পর অপসারণ করার কথাও তাদের। কিন্তু আজ পর্যন্ত দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর সেতু অপসারণ বা জনসাধারণের চলাচলে বিকল্প কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। সেখান থেকে আদেশ এলে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।


তথ্যসূত্র:
১. ২ বছরেও অপসারণ হয়নি ভাঙা সেতু, ভোগান্তিতে ৩ উপজেলার মানুষ
https://tinyurl.com/yscj5h22

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন

পূর্ববর্তী নিবন্ধআমিরুল মুমিনীনের ফরমান মোতাবেক আফগানিস্তানের প্রতিটি জেলায় নির্মিত হচ্ছে চেকড্যাম
পরবর্তী নিবন্ধমালিতে আল-কায়েদার দুঃসাহসী অভিযান: এলাকা ও সামরিক ব্যারাক বিজয়