সেমালিয়া | আশ-শাবাবের পাল্টা আক্রমণে ৪০ এর বেশি গাদ্দার সৈন্য হতাহত

ত্বহা আলী আদনান

0
643
ফাইল ছবিঃ প্রশিক্ষণরত আশ-শাবাব মুজাহিদিনের একটি ব্রিগেড

পূর্ব আফ্রিকার দেশ সোমালিয়ার কেন্দ্রীয় শহরগুলো ছাড়া এর অধিকাংশ অঞ্চলই নিয়ন্ত্রণ করছে ইসলামি প্রতিরোধ যোদ্ধারা। সম্প্রতি এসব শহরগুলি দখল করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে পশ্চিমা সমর্থিত গাদ্দার মোগাদিশু সরকার। কিন্তু এতে সফলতার পরিবর্তে সেনাদের কফিন নিয়ে ফিরতে হচ্ছে তাদেরকে।

আঞ্চলিক সূত্রমতে, গতকাল ২৪ নভেম্বর বৃহস্পতিবার, সোমালিয়ার রাজধানী মোগাদিশু ও হিরান রাজ্যের বেশ কিছু এলাকা দখল করার লক্ষ্যে হামলা চালায় মোগাদিশু সরকারের গাদ্দার বাহিনী। যে এলাকাগুলো দীর্ঘদিন ধরে নিয়ন্ত্রণ করে আসছেন আল-কায়েদা সংশ্লিষ্ট ইসলামি প্রতিরোধ বাহিনী হারাকাতুশ শাবাব প্রশাসন।

কিন্তু গাদ্দার বাহিনী এলাকাগুলোতে হামলার মাধ্যমে মূলত ভুল গর্তে পা দিয়েছে। যার ফলশ্রুতিতে মোগাদিশুর উত্তরে হাওয়াদলি শহরের ৩টি এলাকাতেই আশ-শাবাব যোদ্ধাদের প্রবল হামলার মুখে পড়ে গাদ্দার বাহিনী, যেখান থেকে তারা পরাজয়ের গ্লাণি নিয়ে কফিন নিয়ে ফিরে আসে।

আশ-শাবাব সংশ্লিষ্ট মিডিয়া সূত্রমতে, গতকাল হাওয়াদলি শহরের ৩টি এলাকায় ভারী প্রতিরোধ গড়ে তুলেন মুজাহিদগণ। এলাকাগুলোতে মুজাহিদদের তীব্র জবাবি হামলায় গাদ্দার বাহিনীর অন্তত ১৪ সৈন্য নিহত এবং আরও ৮ সৈন্য আহত হয়। বাকিরা ৯টি ভারী অস্ত্র ও ১০ সেনার মৃতদেহ যুদ্ধের ময়দানে ফেলে রেখেই এলাকাগুলো ছেড়ে পালিয়ে যায়।

এদিন হিরান রাজ্যে শাবাব নিয়ন্ত্রিত টারদো শহর দখলের উদ্দেশ্যেও হামলা চালায় গাদ্দার মোগাদিশু বাহিনী। কিন্তু এখানেও তারা ব্যর্থ হয় এবং মুজাহিদদের পাল্টা আক্রমণে পরাভূত হয়ে ময়দান ছেড়ে পালিয়ে যায়।

শাহাদাহ এজেন্সির তথ্যমতে, টারদো শহরে মুজাহিদদের জবাবি হামলায় গাদ্দার বাহিনীর এক অফিসার সহ অন্তত ১০ সৈন্য নিহত হয়, সেই সাথে আহত হয় আরও ৮ গাদ্দার সেনা।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন